সিএনজি ছিনতাইয়ে স্ত্রীকে ব্যবহার, আটক ৪ 

সিএনজি ছিনতাইয়ে স্ত্রীকে ব্যবহার, আটক ৪ 

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:১৬ ৮ জুলাই ২০২০   আপডেট: ২১:২৭ ৮ জুলাই ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

যাত্রী সেজে সিএনজি ছিনতাই করাই তাদের কাজ। তাদের টার্গেট ঢাকার কেরানীগঞ্জ ও তার আশপাশের এলাকা। তাদের কৌশল হলো কোমল পানীয়ের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে খাইয়িয়ে চালকের সিএনজিটি হাতিয়ে নেয়া।

মঙ্গলবার দুপুরে মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার কেসি রোডের তন্তর ইউপির সুফিগঞ্জ এলাকায় সিএনজি চালককে অস্ত্রের মুখে ছিনতাইয়ের সময় স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশ এ চক্রের চার সদস্যকে আটক করে।

এ কাজের হোতা মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার বিবন্দী বাগবাড়ি গ্রামের মারফত আলী শেখের ছেলে হাবীবুর রহমান শামীম। পুলিশ তাকেও আটক করেছে।

চক্রটি ঢাকা-কেরানীগঞ্জ ও পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে যাত্রী সেজে সিএনজি ভাড়া করে নির্জন এলাকায় নিয়ে তা ছিনতাই করত। সিএসজি চালক যাতে সন্দেহ করতে না পারে এজন্য হাবীব তার চতুর্থ স্ত্রী মায়ানুর সুমীকে ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য করে নেয়। 

বুধবার দুপুরে শ্রীনগর থানার ওসি হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞা এ বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন। এ সময় তিনি চক্রটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেন। 

আটকদের বরাত দিয়ে ওসি বলেন, মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে চালক রানা হাওলাদারের সিএনজিটি কেরানীগঞ্জের খোলামোড়া থেকে পাঁচজন মিলে ভাড়া করে। বেলা ১১টার দিকে আলমপুর-বাড়ৈখালী সড়কের মাঝা মাঝি এসে তারা সিএনজি থেকে নামে। এ সময় হাবীবের স্ত্রী সুমী চালক রানা হাওলাদারকে ঘুমের ওষুধ মিস্ত্রিত মজো খেতে বললে সে তা প্রত্যাখান করে। পরে তারা পরিকল্পনা পরিবর্তন করে। হাঁসাড়া বাজারে এসে চালক রানার হাত-পা বাঁধার জন্য লাইলনের রশি কিনে। সেখানে কিছুক্ষণ অবস্থান করার পর তারা সিএনজিতে উঠে কেসি রোডের তন্তর এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে আসে। 

এ সময় হাবীব চালক রানার গলায় ছুরি ধরে রাখে। বাকিরা তার হাত-পা বাঁধা শুরু করলে সে সিএনজি থেকে লাফ দিয়ে পড়ে চিৎকার শুরু করে। রানার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে পাভেল, ফজলুল করিম ও সুমীকে আটক করে। হাবীব ও শান্ত ওরফে জিএম পুকুরে ঝাপ দিয়ে কচুরি পানায় লুকিয়ে থাকে। বিকেল ৪টার দিকে হাবীব কচুরি পানা থেকে উঠে আসলে স্থানীয়রা তাকে আটক করে পাশেই অবস্থান নেয়া পুলিশের হাতে তুলে দেয়। 

ওসি আরো বলেন, হাবীব ও তার স্ত্রী সুমির বিরুদ্ধে কেরাণীগঞ্জ থানায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে শ্রীনগর থানায় মামলা হয়েছে। হাবিব ও তার স্ত্রীকে বুধবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাদের দেয়া তথ্যমতে পলাতক আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ