Alexa সিংগাইরে পল্লী চিকিৎসকের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

সিংগাইরে পল্লী চিকিৎসকের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:২৯ ২১ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে এক পল্লী চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অপচিকিৎসার মাধ্যমে রোগীদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযুক্ত সুধীর চন্দ্র ঘোষ ওই উপজেলার জয়মন্টপ-নীলটেক গ্রামের মৃত পাশা ঘোষের ছেলে। তিনি জয়মণ্ডপ পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের জনকল্যাণ ফামের্সিতে কর্মরত।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, সুধীর চন্দ্রের খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব খুইয়েছেন তারা। এ ঘটনায় সিংগাইরের ইউএনও’র কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে তারা।

নয়ানি গ্রামের আলমগীর হোসেন জানান, সুধীর চন্দ্র ঘোষ পল্লী চিকিৎসার প্রশিক্ষণ নিয়ে ডাক্তার বনে গেছেন। নামের আগে ডা. পদবি ব্যবহার করে ফামের্সিতে বসেই রোগী দেখা, প্রেসক্রিপশন দেয়া, বিভিন্ন টেস্ট করাচ্ছেন। তার সঙ্গে বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারের যোগসাজশ রয়েছে। ওইসব ডায়াগনস্টিক থেকে তিনি নিয়মিত কমিশন পান। এছাড়া তার প্রেসক্রিপশনে লেখা ওষুধ নিতে হয় ওই ফার্মেসি থেকেই।

ভাকুম গ্রামের নাসরিন আক্তার বলেন, আমি রান্না করতে গিয়ে শরীর পুড়িয়ে ফেলি। ছয় মাস ধরে সুধীর চন্দ্র চিকিৎসার নামে আমার কাছ থেকে প্রায় এক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। কিন্তু আমি সুস্থ হইনি। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হই।

নামের আগে ডাক্তার পদবি ব্যবহার প্রসঙ্গে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি অভিযুক্ত সুধীর চন্দ্র ঘোষ।

তিনি বলেন, অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের সঙ্গে পরামর্শ করেই রোগীদের প্রেসক্রিপশন দেই। আমি মেট্রো ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পার্টনার। তাই ফামের্সিতে বসে রক্ত নিয়ে ওখান থেকে টেস্ট করাই।

সিংগাইরের ইউএনও রাহেলা রহমত উল্লাহ বলেন, সুধীর চন্দ্র ঘোষের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর