Alexa সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘট, ভোগান্তিতে জনগণ

সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘট, ভোগান্তিতে জনগণ

মফস্বল ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:১৭ ২০ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৩:৩৮ ২০ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে সারাদেশে পরিবহন শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি চলছে। এতে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। ভোগান্তি পোহাচ্ছে জনগণ। মঙ্গলবার থেকে সারাদেশে এ কর্মবিরতি শুরু হয়েছে। এর সঙ্গে বুধবার থেকে সংযুক্ত হয়েছে পণ্য পরিবহন ধর্মঘট।

বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

পাবনা: 

উত্তরবঙ্গের জেলা পাবনায় দেখা গেছে, ধর্মঘটের কারণে কারখানা উৎপাদিত মালামাল জেলাসহ সারাদেশে সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

জানা গেছে অনেকটা হঠাৎ করেই পরিবহন চলাচল বন্ধ করে দেন তারা। এতে দূরের যাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়েছেন। আবার কোনো চালক পরিবহন নিয়ে সড়কে নামলেও তাকে বাধা দিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে দেয়া হচ্ছে।

বগুড়া:

এছাড়াও নয় দফা দাবিতে বুধবার সকাল ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য পণ্য পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ ট্রাক কাভার্ড ভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। ট্রাক চলাচল বন্ধ থাকার কারণে বগুড়া থেকে পণ্য পরিবহন বন্ধ রয়েছে। এতে করে কাঁচা সবজি ঢাকাসহ অন্যান্য জেলায় যাওয়া বন্ধ রয়েছে।

বগুড়া মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি কামরুল মোর্শেদ আপেল জানান, শ্রমিক ইউনিয়ন কোন ধর্মঘটের ডাক দেয়নি। চালকরা নিজেই বাস চালানো বন্ধ করে দিয়েছে। তবে দূরপাল্লার কিছু বাস চলাচল করছে।

কুমিল্লা:

অপরদিকে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বুধবার সকাল থেকে কুমিল্লায় পরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়েছে। এতে যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়েছে। তবে কুমিল্লা পরিবহন মালিক শ্রমিক নেতারা এটাকে ধর্মঘট বলতে রাজি নন। তারা একে নানা হয়রানীর প্রতিবাদ বলে জানিয়েছেন। 

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার পীরযাত্রাপুর ইউপির সাদকপুর গ্রামের কলেজ শিক্ষক অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ভোরে নগরীর শাষনগাছা বাসস্ট্যান্ডে এসে দেখি বাস চলছে না। সকাল ৯টা পর্যন্ত অপেক্ষার পর বাসায় চলে এসেছি। আর অফিসে যাওয়া হয়নি। 

শাষনগাছা, চকবাজার ও জাঙ্গালিয়া বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায় কয়েকশ মানুষ গাড়ির অভাবে দাঁড়িয়ে আছে। কিন্তু চালকরা বাস ছাড়ছে না। কবে বা কখন গাড়ি ছাড়বে এটাও কেউ বলতে পারছে না। 

এদিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার অংশে দুই-একটা মালামাল আনা নেয়ার কাজে ট্রাক দেখা গেলেও চোখে পড়েনি কোন যাত্রীবাহী বাহন।

কোনো রকম পূর্ব ঘোষণা ছাড়া কেন এই ধর্মঘট জানতে চাইলে জেলা বাস মালিক সমিতির মহাসচিব তাজুল ইসলাম জানান, কেন্দ্রীয় ভাবে এ সিদ্ধান্ত হয়নি। এটা পরিবহন র্ধমঘট নয়। দাউদকান্দি টোল প্লাজায় ট্রাক লড়ি র্ধমঘট চলার সময় কমিল্লার শাষনগাছা থেকে এশিয়া-তিশা পরিবহনের ওপর হামলার কারণে জেলা পরিবহন চালক ও হেলপারদের অঘোষিত ধর্মঘট চলছে। তবে এটা আমাদের কেন্দ্রীয় কর্মসূচি না।

সাতক্ষীরা :

এদিকে সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে বুধবার সকালেও কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। বন্ধ রয়েছে অভ্যন্তরীণ রুটের সব বাস চলাচলও। তবে যাত্রীবাহী বাস বন্ধ থাকলেও বিআরটিসি বাস চলাচল করতে দেখা গেছে। বাস চলাচল বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন দূর-দূরান্তের যাত্রীরা। অটোরিকশা, মাহেন্দ্র, ইঞ্জিনের ভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহনে তারা যাতায়াত করছেন।

ধর্মঘটের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরে। এতে বিপাকে পড়েছেন ভোমরা স্থল বন্দরের ব্যবসায়ীরা। ট্রাক ঠিকমত না পাওয়ায় তাদের দ্বিগুণ খরচে পণ্য পরিবহন করতে হচ্ছে। তবে আমদানি-রফতানিতে মঙ্গলবার পর্যন্ত তেমন কোনো প্রভাব পড়েনি বলে জানিয়েছেন শুল্ক স্টেশনের কর্মকর্তারা।

ভোমরা স্থলবন্দরের আমদানিকারক আব্দুল গফুর জানান, ধর্মঘটের কারণে তারা তারা পণ্য পাঠাতে পারছে না। মঙ্গলবার পর্যন্ত পচনশীল পণ্য পাঠাতে তাদের দ্বিগুণ খরচ হয়েছে। 

তবে জেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শাহিনুর রহমান শাহিন জানান, কেন্দ্রীয় শ্রমিক ফেডারেশন ট্রাক ধর্মঘটের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। তবে নতুন সড়ক পরিবহন আইনের ভয়ে অনেকে ট্রাক চালাচ্ছে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস