Alexa সানগ্লাস পরে ট্রাইব্যুনালে ওসি মোয়াজ্জেম

সানগ্লাস পরে ট্রাইব্যুনালে ওসি মোয়াজ্জেম

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:২০ ১৭ জুন ২০১৯   আপডেট: ১৩:২৩ ১৭ জুন ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেফতার সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়েছে। 

সোমবার (১৭ জুন) দুপুর সাড়ে বারটার দিকে তাকে শাহবাগ থানা প্রিজন ভ্যানে করে আদালতে নেয়া হয়।

গা‌য়ে হালকা হলুদ র‌ঙের প‌লো গে‌ঞ্জি। চো‌খে কা‌লো চশমা। মু‌খে হালকা দা‌ড়ি। সাম‌নে পিছ‌নে সাদা পোশাক ও পোশাকধা‌রী আরো আট-দশজন পু‌লিশ সদস্য। মাথা নিচু ক‌রে নি‌জের চেহারা আড়াল ক‌রে একপ্রকার মুখ ঢে‌কে প্রিজন ভ্যা‌নে উঠ‌লেন সা‌বেক ওসি মোয়া‌জ্জেম হো‌সেন। এসময় পাশ থেকে একজন নিষেধ করলেও সানগ্লাস পরে প্রিজন ভ্যানে ওঠেন তিনি।

এর আগে, রোববার (১৬ জুন) হাইকোর্ট এলাকা থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের পরোয়ানাভুক্ত আসামি ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেফতার করে শাহবাগ থানা পুলিশ। পরে সোমবার সকালে তাকে সোনাগাজী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

ওসি মোয়াজ্জেমকে হস্তান্তরের বিষয়ে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বলেন, ফেনীর সোনাগাজী থানায় তার অ্যারেস্ট ওয়ারেন্ট (গ্রেফতারি পরোয়ানা) থাকায় সেই থানার পুলিশের একটি প্রতিনিধি দল সকালে ঢাকায় আসে। সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে ফেনী পুলিশের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়। পরবর্তী আনুষ্ঠানিকতা তারা পালন করবেন।

গত মার্চ মাসে নুসরাত যখন তার মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ দৌলার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছিলেন তখন সোনাগাজী থানার ওসি ছিলেন মোয়াজ্জেম। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, নুসরাতকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার কয়েকদিন আগে ২৭ মার্চ তাকে আপত্তিকর প্রশ্ন এবং তা ভিডিওতে ধারণ করেন তিনি। পরবর্তী সময়ে তিনি তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। 

এ অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ঢাকার সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। মামলায় আদালতের নির্দেশে তার বিরুদ্ধে ২৭ মে প্রতিবেদন দাখিল করে তদন্ত সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। সেদিনই তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে ট্রাইব্যুনাল। 

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ