Alexa সাত হাজার মানুষের হাসি ফোটাবে একটি কালভার্ট

সাত হাজার মানুষের হাসি ফোটাবে একটি কালভার্ট

মো.ফারুক, পেকুয়া (কক্সবাজার) ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:২১ ২৫ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৪:২৫ ২৫ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: ডেইলি ‍বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি ‍বাংলাদেশ

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার উজানটিয়া ইউপিতে কোটি কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে। তবে মধ্যম উজানটিয়াবাসীর ছাবের আহমদ ভায়া সড়কের ভেলুয়ার পাড়া-ফকির পাড়ার মাঝখানের কালভার্টটি সংস্কার বা নতুন করে নির্মাণ করার দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। 

এতদিন চরম ঝুঁকি নিয়েই শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়দের কালভার্ট পার হতে হতো। তবে বর্তমানে সংস্কারের বদলে সেখানে একটি নতুন কালভার্ট নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে এখান দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করা প্রায় সাত হাজার মানুষের মুখে হাসি ফুটেছে। 

সরেজমিনে দেখা গেছে, এ সড়কটি দিয়ে শতশত শিক্ষার্থী ছাড়াও বিচ্ছিন্ন দ্বীপ করিয়ারদিয়া, জৈনুদ্দিন পাড়া, মিয়ার পাড়া, মালেক পাড়া, মৌলভী পাড়া ও ভেলুয়ার পাড়ার লোকজন চলাচল করে। এছাড়া খান বাহাদুর উচ্চ বিদালয়, ভেলুয়ার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আজিজিয়া কাছেমুল উলুম মাদরাসা, মঈনুল উলুম মাদরাসা, মহিলা মাদরাসা, আহমদীয়া সুন্নীয়া মাদরাসার শিক্ষার্থীরা কালভার্টের ওপর দিয়ে চলাচল করে। পাশাপাশি প্রতিদিন শতশত গাড়ি চলাচল তো রয়েছেই।

তবে স্থানীয়দের সেই দুঃখ ঘুচতে যাচ্ছে। ১৫ দিন আগে কালভার্টটির কাজ শুরু করেছে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় (পিআইও)।

পিআইও কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সরকারের উন্নয়নের অংশ হিসেবে পেকুয়া উপজেলায় বেশ কয়েকটি পিআইও কালভার্টের কাজ চলমান রয়েছে। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছিল মধ্যম উজানটিয়া কালভার্টটি। এটি দিয়ে প্রতিদিন প্রায় সাত হাজার মানুষ চলাচল করে। এলাকাবাসীর দাবির কারণে ২৫ লাখ টাকা ব্যয়ে কালভার্টটির কাজ শুরু করা হয়েছে। এরইমধ্যে নিচের অংশের ঢালাই শেষ হয়েছে। আগামী ১৫ দিনের ভেতর কাজ সম্পূর্ণ শেষ হবে। এক মাসের মধ্যে গাড়িও চলাচল করতে পারবে।

স্থানীয় শিক্ষার্থী তারেকুল ইসলাম, রুমেনা বেগম, শফিক বলেন, আমরা বহু কষ্টে সড়কটি দিয়ে স্কুল মাদরাসায় যাতায়াত করতাম। কারণ কালভার্টটি বেশ ঝুঁকিপূর্ণ ছিল। বর্তমানে কালভার্টটির কাজ শুরু হওয়ায় আমরা অনেক খুশি। দ্রুত কাজ শেষ করে উম্মুক্ত করে দেয়ার আবেদন জানাচ্ছি।

ইউপি সদস্য জিয়াউল হক বলেন, উজানটিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ছাবের আহমদ ভায়া সড়কের ওপর কালভার্টটি সংস্কার করার জন্য অনেকদিন ধরে চেষ্টা করছিলাম। ভাগ্যক্রমে সংস্কার নয় সম্পূর্ণ নতুনভাবেই তৈরি করা হচ্ছে। স্থানীয়দের এখন আর কোনো অসুবিধা হবে না।

ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বলেন, উজানটিয়া ইউপিতে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় এ গুরুত্বপূর্ণ সড়কে কালভার্টের কাজ শেষ হলে এলাকাবাসী অনেক উপকৃত হবে। বিশেষ করে শিক্ষার্থী, লবণ ও মাছ চাষিদের আর কোনো অসুবিধা থাকবে না।

পিআইও শুভ্রাত দাশ বলেন, উজানটিয়ায় বেশ কয়েকটি ব্রিজের পাশাপাশি মধ্যম উজানটিয়ার কালভার্টটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। খুব টেকসইভাবে কালভার্টটি নির্মাণ করা হচ্ছে। এলাকাবাসী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের চলাচলের সুবিধায় দ্রুত কাজ শেষ করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর