সাত মাস ধরে মেয়েকে ধর্ষণ করছে বাবা

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:০৯ ১৩ এপ্রিল ২০১৯   আপডেট: ১৪:১১ ১৩ এপ্রিল ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় সাত মাস ধরে বাবা নিজের ১১ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।  

এ ঘটনায় পাষন্ড ওই বাবাকে শুক্রবার রাতে আটক করেছে মুক্তাগাছা থানা পুলিশ।

মুক্তাগাছার দুল্লা ইউপির কুড়িপাড়া গ্রামের তিন মেয়ে সন্তানের জনক আলাল হুদা। পেশায় একজন অটো ড্রাইভার। তার বড় মেয়ে স্থানীয় হাইস্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী। স্কুল পড়ুয়া এ মেয়েকে বিভিন্ন প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে সাত মাস ধরে ধর্ষণ করে আসছিল বাবা আলাল হুদা। অবশেষে এ ঘৃন্য কাহিনী তার মা ইতি বেগমকে জানায় ধর্ষণের শিকার ওই মেয়ে । এতে তার মা ইতি বেগম প্রতিবাদ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে মা -মেয়ে দু’জনকেই বিভিন্ন সময় মারধর করে ধর্ষক আলাল হুদা। তবুও সে তার ১১ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ করা থেকে বিরত হয়নি।

অবশেষে কোনো পথ না দেখে সপ্তাহ খানেক আগে তিন মেয়ে নিয়ে পালিয়ে যায় মা ইতি বেগম। আলাল ফুসলিয়ে ও মিষ্টি কথায় অনুরোধ করলে ১২ এপ্রিল শুক্রবার মা ইতি বেগম মেয়েদের নিয়ে বাড়ি আসে। ইতি বেগম তার স্বামীর মতলব বুঝতে পেরে সে স্থানীয় ইউপি সদস্য মনোয়ারাকে ঘটনাটি খুলে বলেন। ইউপি সদস্য ঘটনা অবগত হয়ে বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করলে শুক্রবার রাত ৯টায় ধর্ষক আলাল হুদাকে আটক করে পুলিশ। 

ধর্ষিতার মা ইতি বেগম বলেন, মেয়ের সর্বনাশ দেখে সে আর ঠিক থাকতে পারেনি, তাই কোনো উপায় না দেখে স্থানীয় ইউপি সদস্যকে জানাতে বাধ্য হয় সে। তার মেয়ের সর্বনাশকারী স্বামী আলাল হুদার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। 

মুক্তাগাছা থানার ওসি মোহাম্মদ আলী মাহমুদ বলেন, মেয়ের সঙ্গে ধর্ষণের ঘটনার জানার পর তাৎক্ষণিক পুলিশ পাঠিয়ে ধর্ষককে আটক করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ