Alexa ‘সাইক্লোন সেন্টারের ছাদে বোরকা-ওড়না-সালোয়ারের পোড়া অংশ পাই’

‘সাইক্লোন সেন্টারের ছাদে বোরকা-ওড়না-সালোয়ারের পোড়া অংশ পাই’

ফেনী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০২:৪৭ ২২ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ০৩:০১ ২২ আগস্ট ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ফেনী পিবিআই’র ওসি মো. শাহ আলম বলেছেন, নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলা পিবিআই’তে হস্তান্তরের সঙ্গে সঙ্গেই তদন্ত শুরু করি। মাদরাসার পাশের সাইক্লোন সেন্টারের ছাদ থেকে বোরকা-ওড়না-সালোয়ারের পোড়া অংশ, জুতা, কেরোসিন মেশানো পলিথিন, ম্যাচের কাঠি উদ্ধার করি।

বুধবার সোনাগাজীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার ৯২তম সাক্ষী হিসেবে ফেনী জেলা জজ আদালতে এসব কথা বলেন তিনি। রোববার তাকে জেরা করবেন আসামিপক্ষের আইনজীবীরা।

ওসি মো. শাহ আলম আরো বলেন, ঘটনাস্থল ও বিভিন্ন স্থান থেকে গুরুত্বপূর্ণ অসংখ্য তথ্য ও আলামদ উদ্ধার করা হয়েছে।

আদালতের পিপি হাফেজ আহাম্মদ বলেন, বুধবার দুপুর ১২টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত সাক্ষ্য দিয়েছেন ওসি শাহ আলম। রোববার বাকি সাক্ষ্য গ্রহণের পর তাকে জেরা করবেন আসামিপক্ষের আইনজীবীরা।

হাফেজ আহাম্মদ আরো বলেন, ২৭ জুন থেকে ২১ আগস্ট পর্যন্ত ৮৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। সাক্ষ্য গ্রহণের সময় আসামিরা উপস্থিত ছিলেন।

২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা নিজ কক্ষে ডেকে নুসরাত জাহান রাফির শ্লীলতাহানি করেন। এ ঘটনায় নুসরাতের মা শিরিন আকতারের করা মামলায় অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মামলা তুলে না নেয়ায় ৬ এপ্রিল মাদরাসার পাশের সাইক্লোন সেন্টারের ছাদে ডেকে নিয়ে শরীরে কেরোসিন ঢেলে নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। ১০ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর