সহোদরের রাতারাতি সম্পদের পাহাড়, এলাকায় চাঞ্চল্য

সহোদরের রাতারাতি সম্পদের পাহাড়, এলাকায় চাঞ্চল্য

ফেনী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৩:১৯ ৯ জুলাই ২০২০  

কামাল ও জামাল (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

কামাল ও জামাল (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলায় মানবপাচারের অভিযোগে সহোদরকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। উপজেলার রাজাপুর ইউপির গণিপুর গ্রামের কামাল ও জামাল নামে ওই দুইজনকে নিজ বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে। 

রাজাপুর ইউপির গনিপুর নিবাসী বাহার মেম্বারের ভাতিজা কামাল ও জামালকে বুধবার আটক করে ঢাকায় নিয়ে যায় গোয়েন্দা পুলিশ।

সূত্র জানায়, ভিয়েতনাম ও ব্রুনাইসহ বিভিন্ন দেশে লোক পাঠানোর কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে রাতারাতি অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, গত দুই বছর আগেও যাদের নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা সেই কামাল ও জামালের হঠাৎ বড়লোক হয়ে উঠার বিষয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। তারা কি এমন আলাদিনের চেরাগ হাতে পেল সেটাই সবার প্রশ্ন। গত দুই বছরে তারা কয়েক কোটি টাকার সম্পদের মালিক হয়েছেন।

ঢাকায় ফ্ল্যাট, ফেনীতে বাড়ি, রাজাপুর বাজারে দেড় কোটি টাকার জায়গা কিনে সেখানে দুই কোটি টাকা ব্যয়ে অত্যাধুনিক মার্কেট নির্মাণ, দামি গাড়ি ছাড়াও গ্রামে, ফেনীতে ও ঢাকায় কয়েক কোটি টাকার জমির মালিক হয়েছেন। ট্রাভেলস ব্যবসার আড়ালে তাদের আয়ের প্রকৃত উৎস কি তা অস্পষ্ট। 

দুই মাস আগে গ্রামের বাড়িতে প্রাসাদোপম দুইতলা একটি ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু করে এলাকায় দুই ভাইয়ের রাজকীয় চলাফেরা সবার নজর কেড়েছে। ঢাকা থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল দুই ভাইকে আটক করে ঢাকায় নিয়ে যায়। অজ্ঞাত কারণে, এতে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। সঠিক তদন্তের মাধ্যমেই তাদের আয়ের উৎস এবং অঢেল সম্পদ অর্জনের তথ্য জানা যেতে পারে।

রাজাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনম কাসেদুল হক বাবর জানায়, দুই ভাইকে পুলিশের একটি টিম আটক করে বাড়ি থেকে নিয়ে গেছে বলে লোক মারফতে শুনেছি। তবে তাদের কি কারণে আটক করা হয়েছে এ বিষয়ে কিছুই জানেন না তিনি।

ফেনী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ওসি নুরুজ্জামান জানান, গোয়েন্দা পুলিশের ঢাকার একটি টিম দুইজনকে রাজাপুর থেকে আটক করে জিঙ্গাসাবাদের জন্য ঢাকায় নিয়ে গেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম