Alexa সর্ষের মধ্যেই ভূত!

সর্ষের মধ্যেই ভূত!

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২২:১১ ১০ ডিসেম্বর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে চলছে সরকারি বন উজারের মহোৎসব। বন-বাগান ধ্বংস করে চলছে ফল-ফসল-মাছ চাষ।

এমন অভিযোগ উঠেছে স্বয়ং বন বিভাগের হেডম্যানসহ কয়েকজন প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। এ যেন সর্ষের মধ্যেই ভূত।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ওই উপজেলার কালাছড়া বনের পাহাড়-টিলা দখল করে মূল্যবান সেগুন ও আগর বাগান ধ্বংস করে লেবু-আনারস চাষ ও মাছের ঘের করেছেন বন বিভাগেরই এক হেডম্যান।

স্থানীয়রা জানায়, কালাছড়া বনের সরইবাড়ির সেগুন ও আগর বাগান দখল করে নিয়েছেন হেডম্যান মাখন উড়াং। সেগুন বাগান ধ্বংস করে সেই টিলায় আনারস চাষ করেছেন। এছাড়া আশপাশের কয়েকটি টিলা তার ভাই ও বোনের জামাইসহ নিকট আত্মীয়দের দিয়েছেন। সেখানেও আনারস-লেবুর বাগান করা হয়েছে।

একই অভিযোগ, ইউপি সদস্য আবুল কালাম, নিমাই উড়াং সান্তু উড়াং, সুমন উড়াং, জব্বার, মুহাম্মদ, বাশারসহ প্রভাবশালী কয়েকজনের বিরুদ্ধে।

এ বিষয়ে কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান অভিযুক্ত হেডম্যান মাখন উড়াং।

আরেক অভিযুক্ত আবুল কালাম বলেন, অতীতে বনের টিলা দখল করা হলেও এখন আর কেউ বন উজার করে ফল-ফসল চাষ করেনি।

বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা মোনায়েম হোসেন বলেন, সংরক্ষিত বন দখলের কোনো সুযোগ নেই। কেউ দখলের চেষ্টা করলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। আগে থেকে দখল হওয়া বন দখলমুক্ত করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর