সরকার সব সময় অসহায় মানুষের পাশে আছে: পলক

সরকার সব সময় অসহায় মানুষের পাশে আছে: পলক

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৫০ ১৬ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৫:৩৭ ১৬ জুলাই ২০২০

নাটোরের সিংড়া উপজেলার শেরকোল শিববাড়ি এলাকায় বন্যার্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের সময় বক্তব্য দেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

নাটোরের সিংড়া উপজেলার শেরকোল শিববাড়ি এলাকায় বন্যার্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের সময় বক্তব্য দেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, বর্তমান সরকার সব সময় অসহায় মানুষের পাশে আছে। আমাদের লক্ষ্য মানুষের দুর্দশা লাঘব করে তাদের কল্যাণে কাজ করা।

বৃহস্পতিবার নাটোরের সিংড়া উপজেলার শেরকোল শিববাড়ি এলাকায় বন্যার্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের সময় এসব কথা বলেন তিনি।

সম্প্রতি নাটোরের সিংড়া উপজেলায় আত্রাই নদী বিপদসীমার ৫২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। উপজেলার শেরকোল, তাজপুর, কলম, চামারী, ইটালী, ছাতারদিঘী, ডাহিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়ে বন্যা দেখা দিয়েছে। 

শাহবাজপুর-তাজপুর-তেমুখ নওগাঁ সড়ক বন্যার পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে শেরকোল ও তাজপুর ইউনিয়ন বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া এলাকার বাঁধ পরিদর্শন করেন প্রতিমন্ত্রী। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিংড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. নাসরিন বানু ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু রায়হান।

প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে দেশকে আরো দু’টো দুর্যোগের মুখোমুখি হতে হয়েছে। সাইক্লোন আম্ফানের ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে না উঠতে মাঠে বোনা কৃষকের স্বপ্ন বন্যার পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। তবে জনদরদী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার সব সময় দুর্দশাগ্রস্ত কৃষকের পাশে আছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষি ও মৎস্যের পুর্নবাসনসহ গৃহহীন মানুষের গৃহনির্মাণে সহায়তা করবে সরকার। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সব মানুষ বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে থাকবেন। তাদের থাকা-খাওয়ার দায়িত্ব আমাদের। ২০১৭ সালের বন্যার মতই আমরা তাদের পাশে থাকবো।

পলক বলেন, চলনবিলের কৃষকদের কল্যাণের চিন্তা মাথায় রেখে সরকার সাড়ে ৬০০ কোটি টাকা ব্যয়ে চলনবিল উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে। কৃষি মন্ত্রণালয়ের প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষির যান্ত্রিকীকরণ, পানি নিষ্কাশন, সেচ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ সিংড়া উপজেলাসহ আট উপজেলার কৃষকরা উপকৃত হবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ/আরআর