সমুদ্রযাত্রায় প্রস্তুত বাংলাদেশের পতাকাবাহী ‘এমভি রোকনুর’

সমুদ্রযাত্রায় প্রস্তুত বাংলাদেশের পতাকাবাহী ‘এমভি রোকনুর’

চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৫৩ ৬ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৬:৪১ ৬ আগস্ট ২০২০

কর্ণফুলী নদীতে অপেক্ষমাণ বাংলাদেশের পতাকাবাহী সমুদ্রগামী জাহাজ ‘এমভি রোকনুর- ৩২’

কর্ণফুলী নদীতে অপেক্ষমাণ বাংলাদেশের পতাকাবাহী সমুদ্রগামী জাহাজ ‘এমভি রোকনুর- ৩২’

করোনা মহামারির মধ্যেই তৈরি হলো বাংলাদেশের পতাকাবাহী ৩২০০ ডেডওয়েট টন ধারণ ক্ষমতার সমুদ্রগামী জাহাজ ‘এমভি রোকনুর- ৩২’।

ইন্ডিয়ান রেজিস্ট্রার অব শিপিংয়ের (আইআরএস ক্লাস) আওতায় ৮২ দশমিক ৫ মিটার দৈর্ঘের জাহাজটি তৈরি করেছে চট্টগ্রামের ডেলটা শিপইয়ার্ড লিমিটেড।

জানা গেছে, ২০১৯ সালের জুন মাসে ডেল্টা শিপইয়ার্ডকে পাঁচটি জাহাজ তৈরির আদেশ দেয় সিকম গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান ইউনিচার্ট নেভিগেশন লিমিটেড। এরই পরিপ্রেক্ষিতে প্রথম জাহাজ হিসেবে তৈরি হলো ‘এমভি রোকনুর-৩২’। জাহাজটি বর্তমানে কর্ণফুলী নদীতে রয়েছে। এরইমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে ‘সি ট্রায়াল’।

আন্তর্জাতিক মেরিটাইম কনভেনশন ও কোড মেনে ২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে জাহাজটির নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে। এক বছরের মধ্যেই নির্মাণ কাজ শেষ করতে সক্ষম হয়েছে আইআরএস ক্লাস।

আইআরএস ইন্ডিয়া ও বাংলাদেশ রিজিয়নের ম্যানেজার মি. অমিত ভাটনাগর বলেন, দুর্যোগের মুহূর্তে আমাদের টিম অক্লান্ত পরিশ্রম ও দক্ষতার মাধ্যমে জাহাজটি নির্মাণ করেছে। আমি আনন্দিত ও গর্বিত।

সিকম গ্রুপের এমডি আমিরুল হক বলেন, করোনা মহামারির মধ্যে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে কাজটি সম্পন্ন করায় আইআরএস ক্লাসকে ধন্যবাদ। একইসঙ্গে আমার সহকর্মীদেরও অভিনন্দন। জাহাজটি শিগগিরই বাণিজ্যিকভাবে সমুদ্রযাত্রা শুরু করবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর/টিআরএইচ