Alexa সবজি চাষে সচ্ছলতা

সবজি চাষে সচ্ছলতা

কাজী মফিকুল ইসলাম, আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:৩৮ ১৮ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌর শহরের তারাগনের মো. রৌশন মিয়া। অভাব-অনটনের সংসার চলছিল তার। তবে ৪০ শতক জমিতে সবজি চাষ করে পেয়েছেন সচ্ছলতা।

শুধু কৃষক রৌশন নয়, উপজেলার শতাধিক কৃষক সবজি চাষ করে সচ্ছলতা পেয়েছেন। রৌশন জানান, মৌসুম অনুযায়ী পতিত জমিতে লাউ পুইশাক, লালশাক, ঢেঁড়স, ঝিঙ্গা, বরবটি, করলা, বেগুন চাষ করেন তিনি। তিন মাসের পরিচর্যা শেষে লাউ বিক্রির উপযোগী হয়।  জমি তৈরি করে বীজ লাগানোর এক সপ্তাহের মধ্যেই চারা গজায়। এরপর পরিচর্যা, পানি, সার ও  মাচা তৈরিসহ অন্যান্য কাজ করা হয়। স্থানীয় বাজারে একটি লাউ ৫০ টাকা বিক্রি করা হচ্ছে। গত দেড় মাস ধরে লাউ বিক্রি করছেন তিনি।

তিনি আরো জানান,  নিজেদের চাহিদা ও খরচ বাদে এক লাখ টাকার উপর আয় হবে বলে আশা করছেন তিনি। সবজি চাষ সংসারে সচ্ছলতা এসেছে তার। তাই ধানের পরিবর্তে সবজি চাষে মনোযোগী হয়েছেন তিনি। 

পৌর শহরের তারাগন, দেবগ্রাম উপজেলার দক্ষিণ ইউপির কালিনগর, সাতপাড়া, উত্তর ইউপির আজমপুর, চানপুসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় সবজি চাষে ব্যস্ত কৃষকরা।

কৃষক মো. ইউসুফ, শাহজাহান, লোকমান হোসেন, আব্দুস সালাম বলেন, বার মাস কুমড়া, করলা, বরবটি, ঢেঁড়স, কাকরল, গাজর, শিম, টমেটো, পুঁইশাকসহ নানা প্রজাতির সবজি চাষ করা হয়। কৃষি অফিসের পরামর্শ অনুযায়ী সবজি চাষে বেশ সফলতা পেয়েছি আমরা। 

উপজেলার উত্তর ইউপির লিয়াকত হোসেন বলেন, ৬০ শতক জমিতে লাল শাক, মুলা ও লাউ চাষ করা হয়েছে। এতে খরচ হয়েছে ২০ হাজার টাকা। এ পর্যন্ত প্রায় ৭০ হাজার টাকার সবজি বিক্রি হয়েছে। বাজার দর ভালো থাকলে এ মৌসুমে খরচ বাদে এক লাখ টাকার উপর আয় হবে।

তিনি আরো বলেন, এ জমিতে ধান চাষ করলে পাঁচ হাজার টাকার উপর লাভবান হতাম না। তাই সবজি চাষ করি।

কৃষক মো. মেহের আলী জানান, ৩০ শতক জমিতে লাউ চাষ করেছেন তিনি। এ মৌসুমে এক লাখ টাকার উপর সবজি বিক্রি করতে পারবেন বলে জানান এ কৃষক। 
 
আখাউড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহানা বেগম বলেন, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বার মাসের নানা প্রকার সবজি চাষ হচ্ছে। ফলন বৃদ্ধিতে সব সময় স্থানীয় কৃষকদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।  

তিনি আরো বলেন, অনুকূল আবহাওয়ার কারণে সবজির বাম্পার ফলন হয়েছে। তাছাড়া স্থানীয় বাজারে দাম ভালো থাকায় সবজি চাষে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা। কম খরচে লাভ বেশি হওয়ায় বাণিজ্যিকভাবে সবজি চাষ তারা ঝুঁকছেন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ