সচেতনতা বাড়াতে কোভিড কারি, মাস্ক নান ও ইমিউনিটি বুস্টিং সন্দেশ

সচেতনতা বাড়াতে কোভিড কারি, মাস্ক নান ও ইমিউনিটি বুস্টিং সন্দেশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:০২ ৪ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৯:০৪ ৪ আগস্ট ২০২০

কোভিড কারি, মাস্ক নান ও ইমিউনিটি সন্দেশ

কোভিড কারি, মাস্ক নান ও ইমিউনিটি সন্দেশ

করোনাকালে সবাইকে সচেতন করতে সরকার থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষ কাজ করে যাচ্ছে। সচেতনতা বাড়াতে একেক দেশ একেক ধরনের অভিনব পদ্ধতিতে কাজ করছে। তেমনি সচেতনতা বাড়াতে খাবারের মেন্যুতে যোগ করা হয়েছে কোভিড কারি, মাস্ক নান ও ইমিউনিটি বুস্টিং সন্দেশ।

ভারতের রাজস্থানের যোধপুরের একটি রেস্টুরেন্টে নিজেদের মেনুতে এনেছে কোভিড কারি ও মাস্ক নান। হোটেলের মালিক জানান, তারা করোনা নিয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে চান। তাই গ্রাহকদের সুরক্ষিত ভাবে খাবার খাওয়ানোর লক্ষ্যে সব রকমের সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে। ডিজিটাল মেন্যুর ব্যবস্থাও করা হয়েছে যাতে কোনভাবে মেন্যুকার্ড থেকে সংক্রমণ না ছড়ায়।

তেমনি করোনা নিয়ে তীব্র আতঙ্কের মধ্যে জনসচেতনতা বাড়াতে এমন উদ্যোগ নিয়েছে যোধপুরের একটি রেস্তোরাঁ। যোধপুরের বেদিক মাল্টিকুজিন রেস্তোরাঁয় বিক্রি হচ্ছে 'কোভিড কারি' সঙ্গে 'মাস্ক নান'৷ মাস্ক নান ছিঁড়ে কোভিড কারিতে ডুবিয়ে সরাসরি মুখে চালান! 

কোভিড কারি

রেস্তোরাঁ এই মেন্যুর ছবি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই বিষয়ে রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন,'কোভিড কারি' আসলে মালাই কোফতা। কোফতাকে করোনা ভাইরাসের আকার দেয়া হয়েছে। আর নানকে দেয়া হয়েছে মাস্কের আকার।

মাস্ক নান

তারা আরো জানান, তাদের রেস্তোরাঁয় সর্বদা স্যানিটাইজেশন চলছে। রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আমরা টাচ-লেস মেনু চালু করেছি৷ যাতে সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিং বজায় রাখা যায়।

করোনাকালে চমৎকার এক সন্দেশ নিয়ে হাজির হয়েছিলেন কলকাতার প্রসিদ্ধ মিষ্টান্ন বিক্রেতা 'বলরাম মল্লিক'। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে বলে এই সন্দেশের নাম দেয়া হয় 'ইমিউনিটি সন্দেশ'।

ইমিউনিটি সন্দেশ

এরইমধ্যে মিষ্টির বাজারে ছেয়ে গিয়েছে ইমিউনিটি সন্দেশ। রসগোল্লা, মিষ্টি দইয়ের পাশাপাশি এই ইমিউনিটি বুস্টিং সন্দেশও বিক্রি হচ্ছে। 

শুধু তাই নয় কলকাতার এই প্রসিদ্ধ মিষ্টির দোকানে তৈরি করা হয়েছে মিষ্টির সিরিজ। যেমন-সঞ্জীবনী সিরিজ, ইমিউনিটি সন্দেশ, পেইনকিলার সন্দেশ, ভাইটিলিটি সন্দেশও।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস