সংস্কারে অনিয়ম, তাৎক্ষণিক বন্ধের নির্দেশ 

সংস্কারে অনিয়ম, তাৎক্ষণিক বন্ধের নির্দেশ 

ইদ্রিস আলম ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৪৯ ১২ এপ্রিল ২০১৯   আপডেট: ১২:৪৫ ১২ এপ্রিল ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

অনিয়ম ও নিম্নমানের কাজের অভিযোগে রাজধানীর বারিধারা এলাকার সড়ক সংস্কার কাজ বন্ধ করেছে কর্তৃপক্ষ। কাজ তদারকির দায়িত্বে থাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী এনামুল কবির ও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান জামান এন্টারপ্রাইজকে শোকজও করা হয়েছে। এছাড়া জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম।

জানা যায়, জামান এন্টারপ্রাইজ নামের ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি রাজধানীর বারিধারার ১০ নম্বর সড়কের ড্রেন, ফুটপাত ও রাস্তা সংস্কারের কাজ পায়। ২৪ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এ সংস্কার কাজ শেষ হওয়ার কথা মে মাসের ২৩ তারিখে।

তবে শুরু থেকেই কাজে অনিয়মের অভিযোগ উঠে। সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে দেখা গেছে, কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে নিম্নমানের ইট, বালু ও সিমেন্ট। কাজও হচ্ছে ধীর গতিতে। 

স্থানীয়রা অভিযোগের সুরে বলেন, এই কাজের শুরু থেকেই তারা দুর্নীতি করে আসছেন। কাজের তেমন অগ্রগতি নেই। সিটি কর্পোরেশন সম্পর্কে তারা বলেন, কাজ দেয়ার আগে সেই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জেনে-বুঝে কাজ দেয়া উচিত ছিল।

এদিকে এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে গেল রোববার কাজ পরিদর্শনে যান ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুহাম্মদ যুবায়ের সালেহীন। তিনিও কাজে ব্যাপক অনিয়ম ও ত্রুটি পান। এ সময় তাৎক্ষণিকভাবে কাজ বন্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়। এছাড়া কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে কাজ তদারকির দায়িত্বে থাকা সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশলী ও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান জামান এন্টার প্রাইজকে।

তিনি আরো বলেন, আমি সরেজমিনে কাজ পরিদর্শন করতে গিয়ে দুর্নীতি দেখতে পাই এবং সঙ্গে সঙ্গে কাজ বন্ধের নির্দেশ দেই। কোনো প্রকার অন্যায়কে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়া হবে না।

ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে মুহাম্মদ যুবায়ের সালেহীন বলেন, উত্তর সিটিতে যে সব ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান কাজ করছে, তাদের সতর্ক করা হয়েছে। কোনো প্রকার অন্যায় করার চেষ্টা থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে।  

এদিকে উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম জানান, কোনো নোটিশ ছাড়া কাজ পরিদর্শন করা হবে। অনিয়ম-দুর্নীতি পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

তিনি আরো জানান, সিটি বাসীর কাছে যে কাজগুলো হচ্ছে সেগুলো আপনাদের। সুতরাং নিজের সুবিধার্থে কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। কোনো প্রকার অন্যায়কে আশ্রয় দেয়া যাবে না।

যে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসবে, তা প্রমাণ হলেই ব্যবস্হা। এ সময় কাজে কোথাও অনিয়ম হলে কর্তৃপক্ষকে জানাতেও নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান মেয়র। 

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/জেডআর