Alexa শ্বাসরোধে হত্যার পর স্ত্রীর লাশ গুম করতে চুক্তি

শ্বাসরোধে হত্যার পর স্ত্রীর লাশ গুম করতে চুক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬:৪৩ ১১ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৬:৪৩ ১১ জানুয়ারি ২০১৯

সংগৃহীত

সংগৃহীত

গাজীপুরের ভাওরাইদে আফরোজা নামে এক গৃহবধূকে গলাটিপে হত্যার পর লাশ সরিয়ে ফেলতে দুইজনের সাথে সাড়ে ছয় হাজার টাকা চুক্তি করে তারই স্বামী। সেই অনুযায়ী কাজও হয়। কিন্তু ধরা পরার ভয়ে ওই দুইজন স্থানীয়দের কাছে লাশ গুমের ঘটনা বলে দেয়। এই ঘটনায় স্বামী শাহজাহান মিয়াসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গ্রেফতার হওয়া বাকি দুইজন হলেন- খোকন মিয়া ও মুকুল মিয়া।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক সারোয়ার-বিন-কাশেম। এসময় তিনি বলেন, গত ৩ জানুয়ারি গাজীপুরের ভাওরাইদে আফরোজা নামে ওই গৃহবধূকে গলাটিপে হত্যা করে তার স্বামী শাহজাহান মিয়া। হত্যার পর স্ত্রীর মরদেহ খাটের নিচে লুকিয়ে রাখেন। পরের দিন মরদেহ গুম করতে দুইজনের সাথে চুক্তি করেন। এর মধ্যে খোকন মিয়াকে চার হাজার এবং মুকুলকে আড়াই হাজার টাকায় ঠিক করা হয়।

তিনি আরো বলেন, স্থানীয় একটি বাড়ির সেপটিক ট্যাংকে লাশ ফেলে দেয়া হয়। ঘটনার পর শাহজাহান আত্মগোপনে চলে যায়। দুইদিন পর স্থানীয়দের সহায়তায় মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের অনুসন্ধানে নেমে বৃহস্পতিবার রাতে তিনজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক বলেন, শাহজাহানের সাথে আফরোজার আট বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের পাঁচ বছর বয়সী একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। ২০১৬ সালে আফরোজা সৌদি আরবে যান। ছয় মাস আগে সে দেশে ফিরে আসেন। স্ত্রী বাইরে থাকায় স্বামী শাহজাহান মিয়া ভাবত তার কাছে অনেক টাকা আছে। এই নিয়ে তাদের মধ্যে বেশ কিছু দিন অশান্তি লেগেছিল। প্রায় ঝগড়াঝাটিও হত।

র‍্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, ঘটনার দিন শিশু কন্যাকে বাইরে পাঠিয়ে শাহাজাহান স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যা করে। পরে মরদেহ খাটের নিচে রেখে দেয়া হয়। সবাই টের পাওয়ার ভয়ে মরদেহ গুমে সাড়ে ছয় হাজার টাকায় চুক্তি করা হয় দুইজনের সাথে। চুক্তি অনুযায়ী তারা লাশ গুম করলেও ধরা পরার ভয়ে ওই দুইজন ভিন্ন নাটক সাজায়। স্থানীয়দের কাছে তাদের সম্পৃক্ততরা কথা গোপন করে শাহজাহান তার স্ত্রীকে হত্যার পর লাশ সেপটিক ট্যাংকে ফেলে রেখেছে জানায়। পরে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।

ঘটনার পর মামলার তদন্তে নামে  র‌্যাব। পরে ডেমরা এলাকায় শাহজাহানের বন্ধুর বাসা থেকে শাহজাহান মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে জানা যায় লাশ গুমে খোকন মিয়া ও মুকুল মিয়াকে সাড়ে ছয় হাজার টাকায় ভাড়া করেছিল।

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/এস