Alexa শিশুর হাতে দশ টাকা গুঁজে দিয়ে সর্বনাশের চেষ্টা

শিশুর হাতে দশ টাকা গুঁজে দিয়ে সর্বনাশের চেষ্টা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:২৮ ১৭ নভেম্বর ২০১৯  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে প্রথম শ্রেণির ছাত্রীর হাতে দশ টাকা গুঁজে দিয়ে তার সর্বনাশের চেষ্টার অভিযোগে উজ্জল মিয়া নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। উজ্জ্বল মিয়া উপজেলার চুন্টা ইউপির নরসিংহপুর গ্রামের জহিরুল হকের ছেলে। 

এ ঘটনায় শনিবার রাতে ওই শিশু ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে সরাইল থানায় মামলা করেন।

রোববার সকালে উজ্জলকে আদালতের সোপর্দ করেছে পুলিশ। অপরদিকে ওই শিশুকে তার জবানবন্দি দেয়ার জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, উপজেলার চুন্টা ইউপির নরসিংহপুর গ্রামের জহিরুল হকের ছেলে উজ্জল মিয়া তার পরিবার নিয়ে উপজেলা সদরের হালুয়াপাড়ায় ভাড়াটিয়া বাসায় বসবাস করেন। তিনি পেশায় একজন ঠিকাদার। উজ্জলের স্ত্রী বাসায় শিশুদেরকে প্রাইভেট পড়াতো। ওই শিশুও উজ্জল মিয়ার স্ত্রীর কাছে বাসায় গিয়ে প্রাইভেট পড়তো। কিছুদিন আগে প্রাইভেট শিক্ষিকা বাসায় না থাকার সুযোগে উজ্জল মিয়া ওই শিশুর হাতে চকলেট কেনার দশ টাকা গুঁজে দিয়ে তাকে ফুসলিয়ে তার সর্বনাশ করার চেষ্টা করে। 

গত বৃহস্পতিবার উজ্জল পুনরায় শিশুটিকে ফুসলিয়ে সর্বনাশ করার চেষ্টা করে। শনিবার শিশুটি অসুস্থবোধ করলে সে তার মায়ের কাছে বিষয়টি খুলে বলে। 

ওই শিশুর বাবা জানান, উজ্জল মিয়া চকলেট কেনার জন্য টাকার লোভ দেখিয়ে তার শিশু মেয়েকে বিভিন্ন সময় সর্বনাশ করার চেষ্টা করেছে। গত শনিবার তার মেয়ে অসুস্থ অনুভব করলে তার মায়ের কাছে ঘটনা খুলে বলে। বিষয়টি শুনে তাৎক্ষণিক মেয়েকে নিয়ে তিনি থানায় যান। 

তিনি বলেন, বিষয়টি সামাজিকভাবে মীমাংসা করার জন্য স্থানীয় একাধিক জনপ্রতিনিধিসহ প্রভাবশালীরা তাকে চাপ দেন। তিনি কারো কথা শুনেননি।

সরাইল থানার ওসি শাহাদাৎ হোসেন টিটু জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত উজ্জল মিয়াকে রাতেই গ্রেফতার করা হয়েছে। রোববার সকালে উজ্জলকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। শিশুটিকে তার জবানবন্দি দেয়ার জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ