শিশুরা বানালো দুই হাজার শহিদ মিনার

শিশুরা বানালো দুই হাজার শহিদ মিনার

রনজিনা খানম, নড়াইল ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৩৩ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৭:৪০ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

জাতীয় শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে নড়াইলের পাড়া মহল্লায় নির্মাণ করা হয়েছে দুই হাজারের বেশি অস্থায়ী শহিদ মিনার। ইট, মাটি, কাগজ ও রঙ দিয়ে এসব শহিদ মিনার নির্মাণ করেছে শিশুরা।

২১ ফেব্রুয়ারি প্রথম প্রহর থেকেই এসব শহিদ মিনারে একযোগে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে নড়াইলবাসী।

শ্রদ্ধা জানানোর জন্য প্রস্তুত ইটের তৈরি শহীদ মিনার

নড়াইলের সাংস্কৃতিক কর্মী মহিউদ্দিন ও আসাদ রহমান জানান, নড়াইল শহরের মহিষখোলা, আলাদাতপুর, ভওয়াখালী, কুড়িগ্রাম, ভাদুলীডাঙ্গা, মাছিমদিয়া, বরাশুলা, বাহিরডাঙ্গা, শহর সংলগ্ন কমলাপুর, শিখালী, সিমাখালী, মুলিয়া, বাঁশভিটা, সীতারামপুর, তুলারামপুর, মালিয়াট, গুয়াখোলা, গোবরা, কলোড়া, চালিতাতলা, কুড়লিয়া, নলদী মিঠাপুরসহ জেলার তিনটি উপজেলার অধিকাংশ গ্রামে এসব শহিদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে।

মহিষখোলা সিটি কলেজ পাড়ার ইমন ও তানভীর জানান, তাদের মহল্লায় কোনো শহিদ মিনার ছিল না। এ কারণে তারা ইট দিয়ে অস্থায়ী শহিদ মিনার নির্মাণ করেছেন। রাত ১২টা ১মিনিটে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে পুরো মহল্লার মানুষ।

ভওয়াখালী এলাকার শিক্ষার্থী শিশির, রোজিনা জানান, তারা ৬-৭ বছর ধরে ইট দিয়ে অস্থায়ী শহিদ মিনার নির্মাণ করে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন। এ ধারা আগামীতেও অব্যাহত রাখতে চান তারা।

শহীদ মিনার বানাচ্ছে শিশুরা

লোহাগড়া উপজেলার নলদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শান্তনা চ্যাটার্জি জানান, ভাষা শহিদদের স্মরণে নড়াইলের শিশুরা কয়েক বছর ধরে আবেগ মিশিয়ে শহিদ মিনার তৈরি করছে। এমন আয়োজন তাদের মধ্যে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা ও দেশপ্রেম অটুট রাখবে।

সাংস্কৃতিক কর্মী ইমান আলী মিলন বলেন, নড়াইলের শিশুদের ব্যতিক্রম এ প্রচেষ্টা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়বে। পরবর্তী প্রজন্মের মাঝে ভাষা দিবসের তাৎপর্য ছড়িয়ে দেবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর