Alexa শিক্ষক যিনি সচিবও তিনি, ধরল দুদক

শিক্ষক যিনি সচিবও তিনি, ধরল দুদক

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:০৭ ১৩ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

একই সময়ে দুটি সরকারি চাকরি করার অপরাধে রফিকুল ইসলাম নামে প্রাইমারি স্কুলের এক প্রধান শিক্ষাককে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোববার দুপুরে চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদ বাদামতলী মোড় থেকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান দুদক-২ এর উপ-সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জাফর সাদেক শিবলী।

তিনি জানান, গ্রেফতার রফিকুল ইসলাম একই সময়ে ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের চাকরি করে আসছেন যা ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

রফিকুল ইসলাম একাধারে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং একই সময়ে ইউনিয়ন পরিষদের সচিবও। অথচ সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী একই ব্যক্তি দুই জায়গায় চাকরি করতে পারেন না। সরকারি এই নিয়মনীতিকে অবজ্ঞা করে রফিকুল ইসলাম দীর্ঘ দিন ধরে অনিয়মের আশ্রয় নিয়েছেন। 

রফিকুল ইসলাম চট্টগ্রাম জেলার লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি, মিরসরাই উপজেলার হিংগুলী ও আনোয়ারা উপজেলার বরুমছড়া ইউপিসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদে সচিব হিসেবে অবৈধভাবে কর্মরত ছিলেন।

রফিকুল ইসলাম ২০০০ সালের ২৯ অক্টোবর লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি ইউনিয়নে সচিব হিসেবে যোগদান করেন। দশ মাস পর ২০০১ সালের ২৯ আগস্ট তিনি আনোয়ারা উপজেলার সরস্বতী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। এই স্কুলে দুই বছর চাকরি করার পর তিনি ২০০৩ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি চাকরি থেকে অব্যাহতি নেন। কিন্তু এর একমাস আগে তথা একই বছরের ২৩ জানুয়ারিতে আনোয়ারা উপজেলার দক্ষিণ জুইদণ্ডী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে একই উপজেলার উত্তর বন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে বদলি হয়ে বর্তমানে সেখানে তিনি কর্মরত আছেন। 
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ