শরণখোলায় তুচ্ছ ঘটনায় সংঘর্ষ, প্রতিবন্ধী-বিধবাসহ আহত ৯

শরণখোলায় তুচ্ছ ঘটনায় সংঘর্ষ, প্রতিবন্ধী-বিধবাসহ আহত ৯

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৪৪ ১০ এপ্রিল ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বাগেরহাটের শরণখোলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে প্রতিবন্ধী ও বিধবাসহ ৯ জন গুরুতর আহত হয়েছেন । তাদের মধ্যে তিনজনকে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার সকালে উপজেলার নলবুনিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিধবা হাসিনুর বেগম বলেন, পারিবারিক তুচ্ছ একটি বিষয় নিয়ে তার আত্মীয় ফিরোজ শেখ তার সঙ্গে মঙ্গলবার সকালে একটি সালিশ বৈঠকে বসে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। এ সময় তার ছেলে হাসানাত শেখ প্রতিবাদ করেন।

এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। ওই ঘটনার জেরে একই দিন বিকেলে ফিরোজ শেখের নেতৃত্বে ফারুখ শেখ, মুছা শেখ, ফোরকান শেখ, আউয়াল শেখ, ইশা শেখ, আফজাল শেখসহ ৭-৮জন একজোট হয়ে হসিনুর বেগম, তার প্রতিবন্ধী ভাই সরোয়ার হাওলাদার এবং তার বৃদ্ধ বাবা আজাহার আলীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন।

পরে খবর পেয়ে হাসিনুরের ছোট ভাই নির্মাণ শ্রমিক নাছির উদ্দিন তাদের উদ্বার করে ওই দিন সন্ধ্যায় তাদের তিনজনকে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এছাড়া তিনি হাসপাতালে থাকায় বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ফিরোজের সহযোগীরা তার বসত ঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেন।

এ বিষয়ে ফিরোজ শেখ বলেন,  হাসিনুরের  ছেলের স্ত্রীর একটি অভিযোগ নিয়ে তার বাবার বাড়িতে লোকজন বৈঠকে বসলে আমাকে ডাকেন তারা। সেখানে তার ছেলে হাসানাত আমাকে লাঞ্ছিত করেন। বিষয়টি শুনে আমার পরিবারের লোকজনসহ স্থানীয়রা ক্ষিপ্ত হন।

এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে আমিসহ আমার  ছেলে, আমার ভাই ফারুক, আফজাল ভাইয়ের ছেলে মুছা ও মেয়ে ফাতিমা আহত হয়। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসা হওয়ার কথা আছে। তাই আমার পক্ষের সবাই চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে আছেন। একটি মহল হাসিনুর বেগমকে হাসপাতালে ভর্তি করে আমাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসাতে নানা ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন।

এ ব্যাপারে শরণখোলা থানার ওসি এস কে আব্দুল্লাহ আল সাইদ বলেন,  কোনো গ্রুপের অভিযোগ পাওয়া যায়নি । অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ