Alexa শয়তানের প্ররোচনায় বোরকা পড়েছিলাম: ইমাম

শয়তানের প্ররোচনায় বোরকা পড়েছিলাম: ইমাম

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৪০ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৭:৪৭ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

বোরকা পরা অবস্থায় আতাউর রহমান নামে কলেজ মসজিদের এক ইমামকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় লোকজন। গতকাল শনিবার রাত ১১টার দিকে বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলায় পৌর শহরের হাসপাতাল সড়ক থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটক হওয়া ইমাম পাথরঘাটা কলেজ ক্যাম্পাস মসজিদের ইমাম ও মারকাজ মাদ্রাসার শিক্ষক। তিনি উপজেলার কাঠালতলী ইউনিয়নের কালিবাড়ী এলাকার বাসিন্দা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাত ১১টার দিকে পশু হাসপাতালের সামনে ব্রাঞ্চ রোডে একজন বোরকা পরা মানুষকে ঘোরাঘুরি করতে দেখে স্থানীয় লোকজন। তার চলাফের সন্দেহ হলে তার গতিবিধি লক্ষ্য করে। তিনি কোথায়, কার কাছে যাবেন জানতে চাইলে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। পরে সড়কে অবস্থানরত মোহাম্মদ সুমন মিয়া নামে এক ব্যক্তি তাকে ধরে ফেলেন।

সুমন মিয়া বলেন, তাকে আটক করার পর তিনি নিজেকে কলেজ মসজিদের ইমাম পরিচয় দেন। তখন ওয়ার্ড কাউন্সিলর রোকনুজ্জামান রুকুকে সংবাদ দিলে তিনি পুলিশ খবর দিয়ে ওই ব্যক্তিকে থানায় সোপর্দ করেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর বলেন, রাত ১১টার দিকে স্থানীয়রা কলেজ মসজিদের ইমাম আতাউর রহমানকে বোরকা পরা অবস্থায় আটক করে। তখন তিনি বলেন, আমি শয়তানের প্ররোচনায় বোরকা পড়েছিলাম। পরে তাকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

বরগুনা জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি ও পাথরঘাটা উপজেলা ইমাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জলিল বলেন, বোরকা পরা অবস্থায় কলেজ মসজিদের ইমাম আতাউর রহমানকে আটকের খবর শুনেছি। 

ওই ইমামের বিরুদ্ধে উগ্রপন্থীদের সঙ্গে সখ্যতা রয়েছে বলেও আমাদের কাছে অভিযোগ আছে। তিনি ভিন্ন মতাবলম্বী প্রতিষ্ঠার জন্য তিনি কাজ করতেন। আটক ইমাম যদি কোনো অপকর্মের সঙ্গে জড়িত থাকে তাহলে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিরও দাবি জানাই।

এ বিষয়ে পাথরঘাটা থানার ওসি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন জানান, বোরকা পরে অনৈতিক কাজে যাওয়ার পথে ওই ইমামকে স্থানীয়রা আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। তিনি পাথরঘাটা কলেজ মসজিদের ইমাম ও তাবলীগ মারকাজ মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএস