লেবাননে জরুরি অবস্থা জারির অনুমোদন দিলো পার্লামেন্ট

লেবাননে জরুরি অবস্থা জারির অনুমোদন দিলো পার্লামেন্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:৩৪ ১৩ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ২০:৩৫ ১৩ আগস্ট ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় দুই সপ্তাহের জন্য জরুরি অবস্থা জারির অনুমোদন দিয়েছে দেশটির পার্লামেন্ট। বিস্ফোরণের ১০ দিন পরে এমন সিদ্ধান্ত আসলো।

বৃহস্পতিবার বিস্ফোরণের প্রথম পার্লামেন্ট অধিবেশনে এ অনুমোদন দিয়েছে স্পিকার। সে সময়ে দেশটিতে দ্রুত নতুন সরকার গঠনের আহ্বান জানান তিনি।

এমন পদক্ষেপে হুঁশিয়ারি দিয়েছে মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো। তাদের মতে এর মাধ্যমে সেনাবাহিনীকে কার্যকর ক্ষমতা দিলো লেবাননের পার্লামেন্ট।

এর আগে গত ৫ আগস্ট বৈরুত বিস্ফোরণের একদিন পরেই দুই সপ্তাহের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করে দেশটির মন্ত্রিপরিষদ। এখন সেনাবাহিনী জরুরি অবস্থা বাস্তবায়ন করবে।

জরুরি অবস্থার আওতায় জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ এমন যেকোনো ধরণের জমায়েত, সমাবেশ নিষিদ্ধ করতে পারবে সেনাবাহিনী। এছাড়া নিরাপত্তার জন্য হুমকি এমন মানুষের ঘরে ঢুকে প্রয়োজনে তাকে গ্রেফতারও করতে পারবে সেনাবাহিনী। এছাড়া সব কোর্টের কার্যক্রম পরিচালিত হবে সেনাবাহিনীর কোর্টে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ ও অন্যান্য মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো জানিয়েছে, পার্লামেন্টের এমন পদক্ষেপে মানবাধিকার ক্ষুণ্ন হবে। তাই বিস্ফোরণের ঘটনায় জরুরি অবস্থা জারি করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে তারা।

গত ৪ আগষ্টের ভয়াবহ ওই বিস্ফোরণের কারণে বিক্ষোভ করেছে দেশটির জনগণ। বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করেছে দেশটির সরকার। এছাড়া ওই বিস্ফোরণে ২২০ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন আরো শতাধিক মানুষ। আহত হয়েছেন প্রায় ৬ হাজারের বেশি মানুষ। এছাড়া গৃহহীন হয়ে পড়েছে ৩ লাখ মানুষ। বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিলো যে ভূমিকম্পের মতো কেঁপে ওঠে পুরো শহর। এছাড়াও বিস্ফোরণে ১০ থেকে ১৫ মিলিয়ন ডলারের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

সূত্র- আল জাজিরা, ডয়চে ভেলে

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ