লিবিয়ায় মুক্তিপণের ১০ লাখ টাকা দিতে রাজি হয়েও খুন হলেন রাকিবুল

লিবিয়ায় মুক্তিপণের ১০ লাখ টাকা দিতে রাজি হয়েও খুন হলেন রাকিবুল

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৫৩ ৩০ মে ২০২০   আপডেট: ১৫:০০ ৩০ মে ২০২০

রাকিবুল। ছবি: সংগৃহীত

রাকিবুল। ছবি: সংগৃহীত

দালালের মাধ্যমে চার মাস আগে লিবিয়ায় যান যশোরের রাকিবুল। সংসারের সচ্ছলতা আনা তো দূর, কাটাতে হয় বন্দি জীবন। এক পর্যায়ে নির্যাতন থেকে বাঁচতে দালাল চক্রকে ১০ লাখ টাকা দিতেও রাজি হয়েছিলেন। তবে শেষ রক্ষা হয়নি তার।

গত বৃহস্পতিবার লিবিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মিজদাহে (ত্রিপলি হতে ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণে) কিছু মানবপাচারকারীর গুলিতে কমপক্ষে ২৬ বাংলাদেশি নিহত হন। এদের মধ্যে একজন যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার খাটবাড়িয়া গ্রামের কলেজছাত্র রাকিবুল ইসলাম।

জানা যায়, যশোর সরকারি সিটি কলেজে অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষে পড়ত রাকিবুল। চার ভাই-বোনের মধ্যে রাকিবুল সবার ছোট। 

রাকিবুলের চাচাতো ভাই লিবিয়া প্রবাসী। ওই ভাই লিবিয়ায় থাকা এক বাংলাদেশি দালালের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেয়। তার মাধ্যমে চার মাস আগে সাড়ে চার লাখ টাকা খরচে রাকিবুলকে লিবিয়ায় পাঠান পরিবারের লোকজন।

লিবিয়ায় রাকিবুলকে আটকে রেখে দালালরা নির্যাতন শুরু করে। পরিবারের লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করে ১৭ মে মোবাইল ফোনে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। 

রাকিবুলের বড় ভাই সোহেল রানা জানান, দালালরা মুক্তিপনের ১০ লাখ টাকা দুবাই থেকে নিতে চেয়েছিল। ভাইয়ের মুক্তির জন্য ওই টাকা দিতে রাজিও হয়েছিলাম। আগামী ১ জুন পর্যন্ত তাদের কাছ থেকে সময় নিলেও শেষ রক্ষা হয়নি। 

লিবিয়া প্রবাসী রাকিবুলের চাচাতো ভাই জানান, বৃহস্পতিবার হত্যা করা ২৬ বাংলাদেশির মধ্যে তার ভাই রাকিবুলও রয়েছেন।

শংকরপুর ইউপি চেয়ারম্যান নিছারউদ্দীন বলেন, লিবিয়ায় মানব পাচারকারীদের হাতে নিহতদের মধ্যে খাটবাড়িয়া গ্রামের রাকিবুল নামে এক যুবকও রয়েছে। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। তার বাড়িতে  শোকের মাতম চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর