ললিপপ কিনতে গিয়ে বরখাস্ত হলেন মন্ত্রী

ললিপপ কিনতে গিয়ে বরখাস্ত হলেন মন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৫৩ ৬ জুন ২০২০  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় সম্প্রতি আফ্রিকার দেশ মাদাগাস্কার হারবাল ওষুধের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে। তাদের মতে, গাছের নির্যাস থেকে বানানো ওই ভেষজ খেলে সাতদিনেই করোনা সারবে। আবার সেই ওষধু পরীক্ষার জন্য স্কুলশিশুদের তা পান করানোর পরিকল্পনা নিয়েছিলো দেশটি। সেদেশের রাষ্ট্রপতি অ্যান্দ্রি রাজোলিনা এই ভেষজ কোভিড-অর্গানিককে করোনাভাইরাসের নিরাময় হিসাবে প্রচার করছেন।

বিবিসি'র এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, দেশটিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার কারণে সর্বশেষ ওষুধটি স্কুলের শিশুদের খাওয়ানোর পরিকল্পনা হয়। আর ওষুধটি খেলে মুখ তেতো হয়ে যাবে, তাই কোমলমতি শিশুদের কথা ভেবে ললিপপ কেনার পরিকল্পনা নিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী রিজাসোয়া। তবে শেষপর্যন্ত তাকে মন্ত্রিত্বই হারাতে হলো।

কোভিড-অর্গানিক নামক এই পানীয় পানে মুখ তেতো হয়ে যায়। তাই তেতো মুখ মিষ্টি করতে স্কুলের বাচ্চাদের প্রত্যেককে তিনটি করে ললিপপ দেয়ার ইচ্ছা ছিল সেদেশের শিক্ষামন্ত্রীর। আর সেজন্য ২০ লাখ ডলারের ললিপপ কেনার অর্ডারও দিতে যাচ্ছিলেন তিনি। তবে এতে রুষ্ট হয়েছেন ওই হারবালের প্রচার চালানো প্রেসিডেন্ট অ্যান্দ্রি রাজোলিনা। বরখাস্ত হয়েছেন ললিপপ কিনতে যাওয়া শিক্ষামন্ত্রী রিজাসোয়া অ্যান্দ্রিমানানা। রাষ্ট্রপতির আপত্তিতে এই পরিকল্পনাটি বাতিল করা হয়েছিলো।

সম্প্রতি করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হতে কোভিড-অর্গানিক নামে হারবাল টনিক বাজারজাত করার ঘোষণা দেয় মাদাগাস্কার। দেশটির প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রি রাজোলিনা স্বয়ং এ ভেষজ ওষুধের গুণাগুণ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে বোতল থেকে পানীয়টি গলায় ঢেলে তিনি দাবি করেছেন, এ ওষুধ খেয়ে দুই করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন।  এরইমধ্যে তাঞ্জানিয়া, লাইবেরিয়াসহ কয়েকটি দেশ ওই ওষুধ কিনেও নিয়েছে।

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হুশিয়ারি দিয়েছে, এ টনিক করোনা চিকিৎসায় পরীক্ষিত নয়। তবুও হারবালটির প্রচার-প্রসার নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলো দেশটি।

এ নিয়ে প্রেসিডেন্ট রাজোলিনার দাবি, এ ওষুধ যদি কোনো ইউরোপীয় দেশ আবিষ্কার করত, তাহলে তারা এসব সমালোচনা করত না। আফ্রিকার প্রতি পশ্চিমাদের এটি অবজ্ঞাপূর্ণ আচরণ।

এদিকে দেশটিতে এরইমধ্যে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে অন্তত ১ হাজার মানুষ। আর প্রাণ হারিয়েছেন ৭ জন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচএফ