বাইরে জীবাণুনাশক, ভেতরে নেই স্বাস্থ্যবিধি

বাইরে জীবাণুনাশক, ভেতরে নেই স্বাস্থ্যবিধি

চাঁদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:০৩ ২ জুন ২০২০   আপডেট: ১৭:১৪ ২ জুন ২০২০

অনেক যাত্রীর মধ্যেও সচেতনতার অভাব রয়েছে।

অনেক যাত্রীর মধ্যেও সচেতনতার অভাব রয়েছে।

সাধারণ ছুটি বন্ধ ঘোষণার পর গত রোববার চাঁদপুর লঞ্চঘাট থেকে চালু হয়েছে লঞ্চ চলাচল। তিনদিন পর যাত্রীর চাপ অনেকটাই কমেছে। তবে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। ঝুঁকি নিয়েই গন্তব্যের উদ্দেশে ছুঁটছেন যাত্রীরা। 

সরেজমিনে মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চাঁদপুর লঞ্চঘাটে দেখা যায়, লঞ্চগুলোতে গত দুইদিনের তুলনায় যাত্রীদের উপস্থিতি তুলনামূলক কম ছিল। তবে স্বাস্থ্যবিধি বজায়ে রাখতে ব্যর্থ হয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। যাত্রীদের মাঝে সামাজিক দূরত্ব ছিল না। যাত্রীদের মধ্যেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়নি।

যাত্রীদের সারিবদ্ধভাবে পল্টুনে ঢুকানো হলেও লঞ্চগুলোতে ছিলো না কোনো সামাজিক দূরত্ব। লঞ্চে উঠার সময় যাত্রীদের হাতে জীবাণুনাশক স্প্রে করা হলেও পল্টুন কিংবা লঞ্চের ডেকে কোনো প্রকার জীবাণুনাশক দ্রব্য ছিটাতে দেখা যায়নি।

এমভি ময়ূর লঞ্চের চাঁদপুর ঘাট সুপারভাইজার আলী আজগর বলেন, যাত্রীদের চাপ আগের চেয়ে আজ অনেক কমেছে। দুপুরের দিকে চাপ একটু বৃদ্ধি পেয়েছিল। হয়তো আগামী দুএকদিনের মধ্যে যাত্রীদের চাপ আর থাকবে না। আমরা চেষ্টা করি স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রী পরিবহন করতে। কিন্তু অনেক সময় যাত্রীরাই অতি উৎসাহিত হয়ে জটকার সৃষ্টি করে থাকে।

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ থেকে আসা নারায়ণগঞ্জগামী যাত্রী রাবেয়া আক্তার বলেন, বেড়াতে এসে লকডাউনে আত্মীয়ের বাড়ি আটকা পড়েছিলাম। দুই মাস পরে বাড়ির উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছি। করোনা ঝুঁকি মাথায় রেখেই রওয়ানা দিতে হচ্ছে।

ঢাকাগামী দুইজন যাত্রী বলেন, কর্মস্থলে যোগ দেয়ার জন্য ঢাকায় যাচ্ছি। কিন্তু লঞ্চঘাটে পর্যাপ্ত পরিমাণে নিরাপত্তা ব্যবস্থাগ্রহণ করা হয়নি। লঞ্চগুলোতেও গাদাগাদি করে আগের মতোই যাত্রী উঠানো হচ্ছে। তাছাড়া অনেক যাত্রীর মধ্যেও সচেতনতার অভার রয়েছে।

বিআইডব্লিউটি এর চাঁদপুর বন্দর ও পরিবহন কর্মকর্তা আবুল বাশার মজুমদার বলেন, গত দুইদিনের তুলনায় আজ যাত্রীদের চাপ অনেকটাই কমেছে। চেষ্টা করছি সামাজিক দূরত্ব বজায়ে রেখে যাত্রী পরিবহন করতে। কিন্তু অনেক সময় তা ধরে রাখা সম্ভব হয় না। এই ক্ষেত্রে যাত্রীদের মাঝেও অসচেতনতা লক্ষ্য করা গেছে। তাদের বার বার অনুরোধ করা সত্ত্বেও অনেক সময় তারা নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে লঞ্চে উঠছেন। তবে আগের চেয়ে পরিবেশ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম