রামগঞ্জে ৩ কোটি টাকা নয়-ছয়ের অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

রামগঞ্জে ৩ কোটি টাকা নয়-ছয়ের অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:১৮ ১২ মে ২০২০  

চেয়ারম্যান বশির আহমেদ মানিক

চেয়ারম্যান বশির আহমেদ মানিক

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ৪ বছরে ৩ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ নয়-ছয় করার অভিযোগ উঠেছে উপজেলার ৯ নম্বর ভোলাকোট ইউপি চেয়ারম্যান বশির আহমেদ মানিকের বিরুদ্ধে। 

সোমবার দুপুরে ভোলাকোট ইউপির ১১ জন মেম্বার উন্নয়নের ওই ৩ কোটি টাকার হিসাব চেয়ে ইউপি সচিবের মাধ্যমে চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত আবেদন করেছেন। 

৯ নম্বর ভোলাকোট ইউপি সদস্য কামাল হোসেন চৌধুরী, সফিকুল ইসলাম, কাঊসার আলম, বেলায়েত হোসেন, জাকির হোসেন, হারুনুর রশিদ, নাছরিন আক্তার, তোফাজ্জল হোসেন, মো. মহসিন, আরিফ হোসেন ও মায়া বেগমের লিখিত আবেদনে উল্লেখ করা হয়, বশির আহম্মেদ মানিক চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে গত ৪৪ মাস ধরে ভোলাকোট ইউপির কোনো উন্নয়ন কমিটি বা বরাদ্দের কোনো সভা হয়নি। এ নিয়ে কোনো সদস্য কথা বললে চেয়ারম্যান মেম্বারদের পদে পদে একাধিকবার অপমানিত ও লাঞ্ছিত করার মাধ্যমে জোর করে মেম্বারদের খালি নোটিশ বই ও রেজুলেশন খাতায় স্বাক্ষর নিয়ে নামে বেনামে প্রকল্প অনুমোদন করা হয়। 

বিগত ৪৪ মাসে নাম্বার প্লেট বাবদ ১৫ লাখ, হোল্ডিং ট্যাক্স বাবদ ৩০ লাখ, এডিপির ১৫ লাখ, টিআর/কাবিখা/কাবিটার ২৫ লাখ, সোলার প্যানেলের ২৫ লাখ, ট্রেড লাইসেন্সের ২৫ লাখ, জন্ম-মৃত্যু এবং ওয়ারিশ সনদের ২০ লাখ, ওয়ান পার্সনের ৪০ লাখ, এলজিএসপি প্রকল্পের ৭০ লাখ, চল্লিশ দিনের কর্মসূচির ৪০ লাখ, গভীর নলকূপের ১০ লাখ টাকা এবং বিভিন্ন বয়ষ্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী, মাতৃত্বভাতাসহ কোন গ্রামে কতজনকে ও কারা তালিকা দিয়েছে, কোথায় কী প্রকল্পের কাজ হয়েছে সংশ্লিষ্ট এলাকার কোনো মেম্বাররা তা মোটেও জানেন না বলেও আবেদনে উল্লেখ করেন। 

এ ব্যাপারে মেম্বার কামাল হোসেন চৌধুরী বলেন, ইউপির ১১ মেম্বার লিখিতভাবে সচিবের মাধ্যমে চেয়ারম্যানকে দিয়েছি। পাশাপাশি অনুলিপি স্থানীয় এমপি, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার, লক্ষ্মীপুর ডিসি, রামগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও ও থানার ওসিকে অবহিত করা হয়েছে।

ভোলাকোট ইউপি চেয়ারম্যান বশির আহম্মেদ মানিক বলেন, সামনে ইউপি নির্বাচন। এজন্য একটি কুচক্রী মহল ওই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমার পরিষদের মেম্বারদের ব্যবহার করে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তবে ব্যবসা বাণিজ্য নিয়ে আমি ঢাকায় থাকার কারণে একটু ব্যস্ত আছি। তবে উন্নয়ন বরাদ্দের হিসাব মেম্বারদের যে কোনো সময় দেয়া যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ