যাত্রাতে ‘ধাক্কা’ খেয়ে সেন্টমার্টিন পৌঁছালো কর্ণফুলী এক্সপ্রেস

যাত্রাতে ‘ধাক্কা’ খেয়ে সেন্টমার্টিন পৌঁছালো কর্ণফুলী এক্সপ্রেস

ভ্রমণ প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:০৫ ৩১ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১২:১৩ ৩১ জানুয়ারি ২০২০

এম ভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেস

এম ভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেস

কেক কেটে ও পায়রা উড়িয়ে কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন নৌরুটে পর্যটকবাহী জাহাজ এম ভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেসের উদ্বোধন হয় গতকাল। তবে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে পর্যটক নিয়ে যাত্রা শুরু করে শুক্রবার সকালে। গন্তব্যে পৌঁছাতে সাড়ে চার ঘণ্টা সময়ে লেগেছে বিলাসবহুল জাহাজটির।

শুক্রবার সকালে কক্সবাজার শহরের উত্তর নুনিয়ারছড়াস্থ বাঁকখালী নদীর বিআইডব্লিউটিএ ঘাট থেকে সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে জাহাজটি পর্যটকদের নিয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। তবে অন্যান্য দিন সকাল ৭টায় যাত্রা শুরু করবে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সেন্টমার্টিন থেকে বিকেল সাড়ে ৩ টায় ফিরে আসার পরিকল্পনা রয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার যাত্রা করেই সমুদ্রের চরে ধাক্কা খেয়ে আটকে বিপাকে পড়ে যায় ‘কর্ণফুলী এক্সপ্রেস।’এ বিষয়ে জাহাজটির পরিচালক এম. হোসাইনুল ইসলাম বাহাদুর বলেন, নাবিক গতিপথ ভুল করায় সমুদ্রের পানির নিচে জেগে ওঠা চরে জাহাজটি আটকা পড়ে।

এম ভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেস

এমভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেসে রয়েছে চার ক্যাটাগরির মোট ৫১০ টি আসন। এর মধ্যে দ্বিতীয় শ্রেণির চেয়ার ভাড়া দুই হাজার টাকা এবং প্রথম শ্রেণির চেয়ার আড়াই হাজার টাকা ভাড়া। ১৭টি কেবিন রয়েছে এ জাহাজে। সিঙ্গেল কেবিন (১ জনের) পাঁচ হাজার, ডাবল (২ জনের) আট হাজার, ইকোনিমিক (২জনের) ১০ হাজার এবং ভিভিআইপি (২জনের) ১৫ হাজার টাকা ভাড়া।

কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন ৯৫ কিলোমিটার সমুদ্রপথে চলাচল করা জাহাজটি ঘণ্টায় প্রায় ১২ নটিক্যাল মাইল গতিতে ছুটতে পারে। নৌযানটির দৈর্ঘ্য ৫৫ মিটার ও প্রস্থ ১১ মিটার। আমেরিকার বিখ্যাত কামিন্স ব্র্যান্ডের দুটি প্রাপালেশন ইঞ্জিন রয়েছে এতে, প্রতিটির ক্ষমতা প্রায় ৬০০ বিএইচপি। কর্ণফুলী এক্সপ্রেসে রয়েছে কনফারেন্স রুম, ডাইনিং স্পেস ও সী ভিউ ব্যালকনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে