Alexa মোরালেস সমর্থকদের ওপর পুলিশের গুলি, নিহত ৫

মোরালেস সমর্থকদের ওপর পুলিশের গুলি, নিহত ৫

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৩৪ ১৬ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৪:৪৬ ১৬ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বলিভিয়ায় প্রতিবাদকারী ও সুরক্ষা বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষে দেশটির প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেসের পাঁচ সমর্থক নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম। এ সহিংসতায় কমপক্ষে ৭৫ জন আহত হয়েছে।

অন্তর্বর্তীকালীন সরকার এই মৃত্যুর বিষয়ে তাত্ক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি তবে প্রায় ১০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে।

মানবাধিকারের আন্তঃ আমেরিকান কমিশন বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে সুরক্ষিত বাহিনী দ্বারা লাইভ ফায়ার এবং টিয়ার গ্যাসের অপ্রয়োজনীয় ব্যবহার বলে অভিহিত করে।

জানা যায়, অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে মোরালেসের ক্ষুব্ধ সমর্থকরা তাদের নিজস্ব বিক্ষোভ করেছে।

দেশটির সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ইভো মোরালেসের সমর্থকদের সঙ্গে দেশটির পুলিশের সশস্ত্র সংঘর্ষের পর বলিভিয়ায় চরম অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছে অন্তবর্তীকালীন সরকার। অধিকাংশ নিহতের ঘটনা ঘটেছে সাকাবায়। পাঁচজন নিহত ছাড়াও পুলিশের গুলিতে অনেকেই আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এদিকে বিতর্কিত নির্বাচনের পর সামরিক বাহিনীর চাপে এসে মোরালেস মেক্সিকোতে পালিয়ে যান। সেখানে তিনি এক টুইটার বার্তায় লেখেছেন, বিক্ষোভকারীদের ওপর ব্যাপক হত্যাকাণ্ড চালানো হচ্ছে। অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গণহত্যা করছে এবং "সত্যিকার স্বৈরশাসনের" প্রতিনিধিত্ব করছে।

উল্লেখ্য, গত ২০ অক্টোবর বলিভিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয়। ওই নির্বাচনে জয়ী হন ইভো মোরালেস। তবে বিরোধীরা তার বিরুদ্ধে কারচুপির অভিযোগ আনেন। এক পর্যায়ে মোরালেসের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন শুরু হয়। এ সময় মেক্সিকোতে পাড়ি জমান দীর্ঘ ১৪ বছর বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করা মোরালেস। 

শুক্রবার সিনেটের সহসভাপতি অন্তর্বর্তী রাষ্ট্রপতি জিনাইন আনেজ বলেছিলেন যে, মোরেলেস বলিভিয়ায় ফিরে আসতে পারেন। তবে তাকে নির্বাচনী জালিয়াতি ও দুর্নীতির অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। 

তিনি আরো বলেছেন, অভিযুক্ত কারণগুলোর জন্য মোড়ালেস কখনই নতুন নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন না।

এ বিষয়ে মোরালেস দাবি করেছেন যে, তিনি এখনো রাষ্ট্রপতি রয়েছেন কারণ কংগ্রেস আনুষ্ঠানিকভাবে তার পদত্যাগ গ্রহণ করেনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ/টিআরএইচ