Alexa মেয়ের অবহেলাতে টয়লেটের পাশেই মারা গেলেন সেই বাবা

মেয়ের অবহেলাতে টয়লেটের পাশেই মারা গেলেন সেই বাবা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:৩১ ২ জুন ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

যে মেয়েকে কোলে পিঠে করে মানুষ করেছেন, প্রতিষ্ঠিত করেছেন সেই পাষণ্ড মেয়ের অবহেলা নিয়েই পাবলিক টয়লেটের পাশে মারা গেলেন বাবা ৮২ বছর বয়সী আব্দুল আজিজ খাঁ। 

রোববার দুপুর ১২টার দিকে বাসস্ট্যান্ডের পাবলিক টয়লেটের পাশে তিনি মারা যান।

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের দশহাজার গ্রামের বাসিন্দা তিনি।

জীবনের শেষপ্রান্তে এসে তার মেয়ে তাকে ঠেলে দেয় এক অমানবিক জীবনে। বেছে নিতে হয় ভিক্ষা জীবনে। তারপর থেকে ঠাঁই হয় ফরিদপুর বাসস্ট্যান্ডের পাবলিক টয়লেটের এককোণে। 

স্থানীয়রা জানান, গত তিন-চার দিন যাবৎ জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। কিছুই খেতে পারছিলেন না। রোববার দুপুরে আব্দুল আজিজ খাঁর মেয়ে আসমা খাতুনের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে বাবার মৃত্যুর সংবাদ পেয়েই কান্নায় ভেঙে পড়ে তিনি। ওই সময়ই বাবার মরদেহ নিতে আসেন।

গত এক বছর আগে বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ খাঁকে বাড়ি থেকে বের করে দেন তার মেয়ে আসমা খাতুন। বৃদ্ধ আজিজ খাঁ ছিলেন অসুস্থ ও পঙ্গু। পায়ের ওপর ভর করে দাঁড়াতে পারতেন না। বসে বসে চলাচল করতেন। এমন অসহায় বাবার জমিজমা দখল করে বাড়ি থেকে বের করে দেন মেয়ে আসমা।

বিভিন্নস্থানে ঘুরে আজিজ খাঁর ঠাঁই হয় ফরিদপুর বাস টার্মিনালে। টার্মিনালের যাত্রী সাধারণের জন্য স্থাপিত টয়লেটের এক পাশে রাত কাটাতের তিনি। দিনের বেলায় টার্মিনালে ভিক্ষা করতেন, বিভিন্ন কাউন্টার ও চলাচলকারী মানুষের কাছ থেকে যা পেতেন তা দিয়ে কোনোমতে দু’মুঠো খেয়ে বেঁচে ছিলেন বৃদ্ধ আজিজ খাঁ। এমন অবহেলায় পৃথিবীর মায়া ছেড়ে চলে যেতে হলো তাকে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ

Best Electronics
Best Electronics