Alexa মেডিকেলে ভর্তির শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

মেডিকেলে ভর্তির শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

ওয়ায়েছ আরিফ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৩১ ৯ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৪:৫৬ ৯ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা হচ্ছে আগামী শুক্রবার। সরকারি মেডিকেলে কলেজে আসন আছে ৪ হাজার ৬৮টি। বেসরকারি মেডিকেলে আসন আছে ৬ হাজার ৩৩৬টি। মোট ১০ হাজার ৪০৪ আসনের বিপরীতে লড়বেন ৭২ হাজার ৯২৮ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী।

রিভিশন

আর কদিন পরই পরীক্ষা। এখন আর নতুন করে কিছুই পড়ার নেই। তাই যেসব পড়া হয়েছে সেবসবই রিভিশন দিতে হবে। শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি হিসেবে প্রতিটি বিষয় ভালো করে রিভিশন দেবে। একমাত্র ভালো রিভিশনই পারে পরীক্ষায় সঠিকভাবে প্রশ্নের উত্তর দিতে।

নজর দাও সাধারণ জ্ঞানে

সাধারণ জ্ঞান বই থেকে বাংলাদেশ বিষয়াবলি এবং আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি শেষবারের মতো দেখে নাও। এই বইটির শেষে বিসিএস, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ ইত্যাদি প্রশ্ন আছে, ধীরে ধীরে এই বইয়ের অন্য বিষয়গুলোতে চোখ বুলিয়ে নাও।

ইংরেজি

বিগত বছরগুলোতে মেডিকেল ও ডেন্টাল প্রশ্নপত্রে যেসব বিষয়ের ওপর ইংরেজি প্রশ্নগুলো (যেমন Voice, Narration, Synonym ইত্যাদি), সেগুলো সমাধান করার পাশাপাশি ভালো কোনো গ্রামার বই থেকে ওই বিষয়গুলো আরও বিস্তারিত পড়তে হবে।

পদার্থ, রসায়ন, জীববিজ্ঞান ও গাণিতিক সমস্যা

পদার্থ, রসায়ন, জীববিজ্ঞান ও গাণিতিক সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য বিগত ১০ বছরের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি হিসেবে প্রতিটি বিষয় ভালো করে রিভিশন দেবে। একমাত্র ভালো রিভিশনই পারে পরীক্ষায় সঠিকভাবে প্রশ্নের উত্তর দিতে।

পরীক্ষার আগের দিন করণীয়

মূল পরীক্ষার আগে প্রিপারেশন শেষ করা জরুরি। পরীক্ষার ঠিক আগের দিনটিতে বেশি পড়ালেখা করার কোনো দরকার নেই। রিলাক্স মুডে থাকবে। নিজের সিট কোথায় পড়ল, সেটা একবার দেখে আসাটা বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ, পরীক্ষার দিন সকালে তাহলে আর টেনশনে পড়তে হবে না।

পরীক্ষার দিন করণীয়

যেখানে তোমার সিট পড়েছে, সেই হল খুলে দেয়ার সঙ্গে সঙ্গেই প্রবেশ করবে। ধীরস্থির হয়ে বসে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র যেমন বলপয়েন্ট কলম, পেনসিল, ইরেজার, প্রবেশপত্র, ক্যালকুলেটর (যদি নিতে দেয়) টেবিলে রেখে পরীক্ষক প্রশ্নপত্র তোমাকে দেয়ার পর সাবধানে নির্ধারিত ঘরগুলো পূরণ করো। কোনো অবস্থাতেই যেন ওএমআর ফরমের নির্ধারিত ঘরগুলো পূরণে ভুল না হয়, সেদিকে খুব সতর্ক থাকবে।

প্রথম ৩০ মিনিটে ৫৮-৬০টি এমসিকিউ প্রশ্নের উত্তর দিয়ে ফেলতে হবে। পরের ২০ মিনিটে বাকি ৪০টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। শেষ ৮-১০ মিনিট রিভিশন এবং উত্তর না দেয়া প্রশ্নগুলো সমাধান করার চেষ্টা করতে হবে। কোনো একটি প্রশ্ন না পারলে সেটির পেছনে অযথা সময় নষ্ট করবে না। দু-একটি এমসিকিউ প্রশ্নের উত্তর না পারলে মন খারাপ করার কিছু নেই। মেডিকেল এবং ডেন্টাল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নোত্তর বারবার রিভিশন দিতে হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম