দূরবীনপ্রথম প্রহর

মুক্তিযুদ্ধে ‘দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কার-২০১৮’ পেলেন দীপু মাহমুদ

নিজস্ব প্রতিবেদকডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
ছবি: দেশ’র সৌজন্যে

মুক্তিযুদ্ধে ‘দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কার ২০১৮’ পেলেন কথাসাহিত্যিক ও গবেষক দীপু মাহমুদ (সাহসিকী) সৃজনশীল প্রকাশনা সংস্থা দেশ পাবলিকেশন্স পঞ্চমবারের মতো এবার ‘দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কার ২০১৮’ প্রদান করার লক্ষ্যে গত সেপ্টেম্বরে পাণ্ডুলিপি আহ্বান করেন।

গত অক্টোবর ১০ তারিখ পর্যন্ত মোট ১৭১ টি পাণ্ডুলিপি জমা পড়ে। এর মধ্য থেকে জুরিবোর্ডের প্রাথমিক নির্বাচনের ভিত্তিতে সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়। এর মধ্য থেকে মুক্তিযুদ্ধে পাণ্ডুলিপি পুরস্কারের জন্য শ্রেষ্ঠ ১ জনের নাম ঘোষণা করা হয়। এবার ‘সাহসিকী’ মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপির জন্য দীপু মাহমুদ শ্রেষ্ঠ হয়েছেন ।

দীপু মাহমুদ। জন্ম ১৯৬৫ সালের ২৫ মে। শৈশব ও বাল্যকাল কেটেছে চুয়াডাঙ্গা জেলার হাট বোয়ালিয়া গ্রামে। বেড়ে ওঠা স্নেহময়ী, কালিশংকরপুর, কুষ্টিয়া। পড়াশোনা করেছেন কুষ্টিয়া জিলা স্কুল, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ও রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়, কলকাতায়। আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষা বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেছেন। পিএইচডি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের আমেরিকান ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটিতে।

উপন্যাস, ছোটগল্প, সায়েন্স ফিকশন, শিশু-কিশোর সাহিত্য, কবিতা, নাটক, মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা, প্রবন্ধ সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় তিনি সক্রিয়। তার প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা-৮০।

লেখালেখির স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি অগ্রণী ব্যাংক-শিশু একাডেমি শিশুসাহিত্য পুরস্কার, সায়েন্স ফিকশন সাহিত্য পুরস্কার, এম নুরুল কাদের শিশুসাহিত্য পুরস্কার, শিশুসাহিত্যিক মোহাম্মদ নাসির আলী স্বর্ণপদক, আনন্দ আলো শিশুসাহিত্য পুরস্কারসহ নানা পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। পেয়েছেন সম্মাননা।

স্ত্রী রূপা মাহমুদ, যমজ দুই পুত্রসন্তান খালিদ বিন মাহ্মুদ ও গালিব বিন মাহ্মুদ। যাদের নিয়ে দীপু মাহমুদের লেখালেখির নিজস্ব ভুবন।

এ বিষয়ে কথাসাহিত্যিক দীপু মাহমুদ বলেন, গল্প-উপন্যাস লিখি দায় থেকে। মানুষের কাছে দায়। দেশের কাছে দায়। দায় আমার মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে। যারা আমাদের স্বাধীন দেশে নিশ্বাস নেওয়ার অধিকার দিয়েছেন। ‘সাহসিকী’ সেই দায় থেকে লেখা পাঁচজন মুক্তিযোদ্ধার কাহিনি। পাঁচ সাহসী নারী। দেশের স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছেন। তাদের কোনো রাষ্ট্রীয় পদক নেই। তারা সাধারণ। তারা এখনো পথ দেখাচ্ছেন আমাদের। সাহসী চেতনায় মুক্তির পথ। ‘সাহসিকী’ দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছে জেনে আনন্দিত হয়েছি। অতিশয় আনন্দিত। আমার লেখা কোনো উপন্যাসের পাণ্ডুলিপি পুরস্কার পেয়েছে শুধু সেজন্য নয়, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে লেখা, আড়াল থেকে তুলে আনা দেশের জন্য যুদ্ধে যাওয়া সাহসী নারীর কথা পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছে বলে। ধন্যবাদ আয়োজক দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কার। কৃতজ্ঞতা দেশ পাবলিকেশন্স, যারা মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে।

দেশ পাবলিকেশন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অচিন্ত্য চয়ন জানান, ‘চেতনায় ঐতিহ্য’ এ স্লোগান ধারণ করে সুনামের সঙ্গেই ৫ম বছরের পুরস্কার ঘোষণা চলছে। প্রতিবারের মতো এবারও মানসম্মত পাণ্ডুলিপিকে পুরস্কৃত করার চেষ্টা করেছি। দেশ পাবলিকেশন্স পরিবার বরাবরই স্বাধীনতার পক্ষে কাজ কওে যাচ্ছে, ভবিষ্যতেও করতে চাই। এবার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে দীপু মাহমুদকে পুরস্কার দিতে পেরে আমরা গর্ববোধ করছি। তার ‘সাহসিকী’ মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি ভিন্নচিন্তার। আশা করি পাঠকেরও ভালো লাগবে। প্রথমবারের মতো গণমাধ্যমে পুরস্কার প্রদান এবং পুরস্কার হিসাবে ক্রেস্ট ও সম্মাননা সনদের সঙ্গে প্রথমবারের মতো নগদ অর্থমূল্য প্রদান করা হবে। মনোনীত পাণ্ডুলিপি একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৯ এ গ্রন্থ আকারে প্রকাশ করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর