Alexa মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের ডায়মন্ড খচিত ক্রাউন উন্মোচন

মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের ডায়মন্ড খচিত ক্রাউন উন্মোচন

বিনোদন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৩২ ১৫ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৯:০০ ১৫ অক্টোবর ২০১৯

ক্রাউন হাতে- তাহসান খান, কানিজ আলমাস, রোকেয়া সুলতানা ও তাদের সঙ্গে মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের শীর্ষ ১০ প্রতিযোগী

ক্রাউন হাতে- তাহসান খান, কানিজ আলমাস, রোকেয়া সুলতানা ও তাদের সঙ্গে মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের শীর্ষ ১০ প্রতিযোগী

উন্মোচন করা হলো মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’র ক্রাউন (টিয়ারা)। মঙ্গলবার দুপুরে গুলশানের আমিশে ফাইন জুয়েলারী ফ্ল্যাগশিপ স্টোরে ৭৫০টি ডায়মন্ড খচিত এই ক্রাউন উন্মোচন করা হয়। যার বাজারমূল্য আনুমানিক ২০ লাখ টাকা। এ ক্রাউনটি মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’র বিজয়ীর মাথায় পরিয়ে দেবেন সাবেক মিস ইউনিভার্স ও বলিউড অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন।

ক্রাউন উন্মোচনের সময় উপস্থিত ছিলেন মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’র বিচারক তাহসান খান, কানিজ আলমাস, রোকেয়া সুলতানা, আমিশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহানা রউফ চৌধুরী, মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের চেয়ারম্যান রিজওয়ান বিন ফারুক ও শীর্ষ ১০ প্রতিযোগী।

ক্রাউন উন্মোচনের সময় তাহসান খান বলেন, মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের প্রথম সংস্করণের অংশ হতে পেরে আমি খুব উচ্ছ্বসিত। আমি বিগত ১২ বছর ধরে বিভিন্ন সুন্দরী প্রতিযোগিতার সঙ্গে জড়িত ছিলাম। অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে বলতে পারি আজ অবধি আমার দেখা সেরা ১০ প্রতিযোগী রয়েছে এখানে। তাদের শুভ কামনা রইলো।

সোহানা রউফ চৌধুরী বলেন, আমিশের জন্য এটি একটি আনন্দের মুহূর্ত। মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতা হলো আমাদের ব্র্যান্ডের জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ ইভেন্ট। এটি এমন একটি ব্র্যান্ড যা নারীদের ব্যক্তিত্ব, শক্তি এবং ক্যারিশমা উপস্থাপন করে। আমরা এই কাস্টম ক্রাউনটি সুন্দর এবং আত্নবিশ্বাসী একজন বিজয়ীর মাথায় দেখার প্রত্যাশায় রয়েছি, যিনি বৈশ্বিক অঙ্গনে দক্ষিণ কোরিয়ায় মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন। এই ক্রাউনটি সবার জন্য গুলশান অ্যাভিনিউতে আমাদের গ্র্যান্ড স্টোরে প্রদর্শিত হবে।

রিজওয়ান বিন ফারুক বলেন, আমরা জুয়েলারি পার্টনার হিসাবে আমিশেকে পেয়ে খুবই সন্তুষ্ট- যারা সবচেয়ে সুন্দর ক্রাউন (টিয়ারা) তৈরি করেছেন। ১৯৯৪ সালের মিস ইউনিভার্স-এর বিজয়ী সুস্মিতা সেন, প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আয়োজিত এ আসরের বিজয়ীর মাথায় এই ক্রাউন পড়িয়ে দিবেন।

কানিজ আলমাস বলেন, প্রথম মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের মেকআপ পার্টনার হয়ে পারসোনা খুব সন্তুষ্ট। আমি অপেক্ষায় আছি কে এই আসরের বিজয়ী হয় তা দেখার জন্য।

আগামী ২৩ শে অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে প্রথম মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ সুন্দরী প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফিনালে। এর আগে গেল সেপ্টেম্বরে শুরু হয় প্রতিযোগিতাটি। কয়েক হাজার প্রতিযোগী থেকে বাছাই করে বর্তমানে সেখানে রয়েছেন শীর্ষ ১০ প্রতিযোগী। যারা টিকে আছেন তারা ১৮ থেকে ২৮ বয়সী অবিবাহিত নারী। এ প্রিতযোগীতায় যিনি বিজয়ী হবেন তিনি ডিসেম্বরে কোরিয়ায় ‘মিস ইউনিভার্স’-এর ৬৮তম আসরে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনএ