মিঠামইন হাওরে বেড়াতে গিয়ে আটকা ১২ ছাত্র, ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে রক্ষা

মিঠামইন হাওরে বেড়াতে গিয়ে আটকা ১২ ছাত্র, ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে রক্ষা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:৩২ ১১ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৬:৫২ ১২ জুলাই ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

কিশোরগঞ্জের মিঠামইন হাওরে বেড়াতে গিয়ে আটকে পড়া ১২ জন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে ৯৯৯-এ কল পেয়ে উদ্ধার করেছে চামটাঘাট ফাঁড়ির নৌ-পুলিশ। তাদের বয়স ২০ থেকে ২২ বছর। 

শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ শিক্ষার্থীদের একজন ফোন করে জানান, তিনিসহ ১২ জন কিশোরগঞ্জের একটি হাওরে ট্রলার বিকল হয়ে আটকে পড়েছেন। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় তাদের ট্রলারটি দিকবিদিক ভাসছিল। তিনি তাদের উদ্ধারের জন্য অনুরোধ জানান।

৯৯৯ সূত্র জানায়, বিজিএমইএ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তুষার, নিলয়, রাকিব, সাফিন, সিয়াম, রকি, রিফাত, শামীম ও আরো দু’জনসহ মোট ১২ জন মোটরসাইকেল যোগে ঢাকার সাভার থেকে রওনা দিয়ে শনিবার বেলা ১২টার দিকে কিশোরগঞ্জে পৌঁছায়। উদ্দেশ্য হাওরে বেড়ানো। তারা মিঠামইন থানার বালিখোলা ঘাট থেকে একটি ট্রলার ভাড়া করে তাতে বাইকসহ উঠে পড়ে।

আশপাশের বিভিন্ন হাওরে ঘুরে বেড়িয়ে বালিখোলা ঘাটে ফেরার পথে ঘাট থেকে ৭-৮ কিলোমিটার দূরে করিমগঞ্জ থানার নাওগাং হাওরে তাদের ট্রলারের প্রপেলারের পাখা ভেঙে যায়। তখন আবহাওয়া ছিলো দুর্যোগপূর্ণ, ঝড়ো হাওয়া বইছিল। ঢেউয়ের তোড়ে তাদের বিকল ট্রলারটি হাওরে দিগ্বিদিক ভাসছিল। ট্রলারের মাঝি তার পরিচিতজনদের কাছে ফোনে সাহায্য চায়। কিন্তু দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় কেউ সাহায্য করার জন্য আসতে রাজি হয়নি। দূরবর্তী কিছু মাছ ধরার নৌকার দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য তারা অনেক চিৎকার করে। কিন্তু কেউ এগিয়ে আসেনি। তখন শিক্ষার্থী তুষার ৯৯৯-এ ফোন করে তাদের উদ্ধারের অনুরোধ জানায়। ৯৯৯ কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশকে অবহিত করে। জেলা পুলিশ ঘটনাস্থলের কাছাকাছি চামটাঘাট ফাঁড়ির একটি নৌ টহল দলকে চিহ্নিত করে।

টহল দলটির এসআই নাজমুল ইসলাম জানান, আবহাওয়া খারাপ থাকায় তারা নিজেরাও ঝুঁকির মধ্যে ছিলেন। ঘণ্টা খানেক খোঁজাখুঁজির পর শিক্ষার্থীদের অবস্থান চিহ্নিত করা হয়। পরে তাদের উদ্ধার করে নিরাপদে ঘাটে পৌঁছে দেয়া হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসসি/এসআই/আরআর