Alexa ২৪৯ রানের জয়ে যত রেকর্ড বাংলাদেশের

২৪৯ রানের জয়ে যত রেকর্ড বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:০৬ ৫ ডিসেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৮:২৫ ৫ ডিসেম্বর ২০১৯

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

এসএ গেমস ক্রিকেটে মালদ্বীপকে ২৪৯ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। এ জয়ে একসঙ্গে কয়েকটি রেকর্ড গড়েছে বাঘিনীরা। এক নজরে দেখে নেয়া যাক সেসব রেকর্ডগুলো। 

মালদ্বীপের বিপক্ষে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ২৫৫ রান করেছে বাংলাদেশ। নারী ক্রিকেটের ইতিহাসে এটি তৃতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ। প্রথম স্থানে রয়েছে আফ্রিকার দেশ উগান্ডা। তারা মালির বিপক্ষে ২ উইকেট হারিয়ে ৩১৪ রান করেছিল। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোরও মালির বিপক্ষে। তানজানিয়া মাত্র এক উইকেট হারিয়ে করেছিল ২৮৫ রান।

এ ম্যাচে বাংলাদেশের বড় স্কোর হয় মুলত নিগার সুলতানা ও ফারজানার সৌজন্যে। মালদ্বীপের ওপর রীতিমতো তাণ্ডব চালান তারা। দুজন মিলে তৃতীয় উইকেটে ২৩৬ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন। এটি বাংলাদেশের যেকোনো উইকেটেই সর্বোচ্চ জুটির রেকর্ড। তবে শুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্ব টি-টোয়েন্টিতেই সর্বোচ্চ জুটির রেকর্ড গড়েছেন নিগার-ফারজানা। 

বাংলাদেশের পাহাড়সম রানের জবাবে ১২.১ ওভারে মাত্র ৬ রানে গুটিয়ে যায় মালদ্বীপ। এটি বিশ্ব নারী টি-টোয়েন্টিতে যৌথভাবে সবচেয়ে কম রানে গুঁড়িয়ে যাওয়ার রেকর্ড। এর আগে রুয়ান্ডার বিপক্ষে সমান ৬ রানে সব উইকেট হারায় মালি। 

২৪৯ রানের এ জয় নারীদের ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে বড় জয়। তবে বিশ্ব ক্রিকেটে রানের ব্যবধানে এটি তৃতীয় সর্বোচ্চ। এর আগে নিজেদের সর্ববৃহৎ জয় ছিল ৭০ রানে মালয়েশিয়ার বিপক্ষে। ৩০৪ রানের জয় নিয়ে এখানে প্রথম স্থানে উগান্ডা, দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তানজানিয়ার মেয়েরা। তারা জিতেছিল ২৬৮ রানে। 

ব্যক্তিগত রেকর্ডেও নাম লিখিয়েছেন নিগার ও ফারজানা। এর আগে বাংলাদেশের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে কোনো নারী ক্রিকেটার সেঞ্চুরি পাননি। অথচ এ ম্যাচে একসঙ্গে দুজন সেঞ্চুরিয়ান পেয়ে গেলো টাইগ্রেসরা। ১৮তম ওভারের ৫ম বলে বাউন্ডারি মেরে সেঞ্চুরি করেন নিগার। এতে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে বাংলাদেশের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান বনে যান তিনি। শেষ ওভারের চতুর্থ বলে ৪ মেরে দ্বিতীয় বাংলাদেশি নারী হিসেবে শতক পূর্ণ করেন ফারজানা। 

এর আগে এক টি-টোয়েন্টিতে জোড়া শতক একবারই দেখেছিল ক্রিকেট বিশ্ব। গেল জুনে মালির বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেন উগান্ডার প্রসকোভিয়া আলোকা ও রিতা মুসামালি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল