সিনেটে ইরানের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের যুদ্ধ অধিকার ক্ষুণ্ন

সিনেটে ইরানের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের যুদ্ধ অধিকার ক্ষুণ্ন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৩৫ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১১:৪৮ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ইরানের বিরুদ্ধে কংগ্রেসের অনুমোদন ছাড়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের যুদ্ধের অধিকার ক্ষুণ্ন করার প্রস্তাবটি পাস করেছে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেট। ফলে সিনেটের অনুমতি ছাড়া ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালাতে পারবেন না ট্রাম্প।

বৃহস্পতিবার সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যরা ইরানের বিরুদ্ধে যেকোনো সামরিক অভিযান বা যুদ্ধ করার আগে ট্রাম্পকে কংগ্রেসের সঙ্গে পরামর্শ করার পক্ষে ভোট দেয়। প্রস্তাবটি ৫৫-৪৫ ভোটে অনুমোদিত হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে সিনেটের এ সিদ্ধান্তের বিপক্ষে ভেটো দেয়ার কথা জানিয়েছেন ট্রাম্প।

এর আগে গত বুধবার এক টুইটার বার্তায় ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধের অধিকার ক্ষুণ্ন করে প্রস্তাব পাস না করতে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটের প্রতি আহ্বান জানান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তিনি বলেন, ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধের অধিকার থাকা যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য ‘অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’। ইরানের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র এখন পর্যন্ত সঠিক পথে এগিয়েছে তাই এখন দুর্বলতা প্রকাশ করার সময় নয় বলেও জানান তিনি।

ডেমোক্র্যাটদের নিয়ন্ত্রিত কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদ ইরানের বিরুদ্ধে মার্কিন প্রেসিডেন্টের যুদ্ধ করার অধিকার কেড়ে নেয়ার প্রস্তাব পাস করে। এই প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয়ার জন্য ডেমোক্র্যাটদের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন আট রিপাবলিকান সিনেটর। সেই আটজনের সঙ্গে ৫৫ ডেমোক্র্যাট সিনেটরের সম্মতি মিলিত হওয়াতে প্রস্তাবটি পাস হয়েছে।

প্রস্তাবের উত্থাপক ডেমোক্র্যাট সিনেটর টিম কেইন বলেছেন, উচ্চকক্ষের এ ভোট কংগ্রেসের সামর্থ্য দেখিয়েছে। এছাড়া এ সিদ্ধান্তের মাধ্যমে সেনা মোতায়েনের যে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে কংগ্রেসের গুরুত্বও প্রতিফলিত হয়েছে বলেও জানান তিনি।

কেইন এবং এ বিলের অন্যান্য সমর্থকরা বলেন, এই সিদ্ধান্তটি ট্রাম্প অথবা এমনকি প্রেসিডেন্টের বিষয়ে নয়, বরং যুদ্ধের ঘোষণা দেয়ার জন্য কংগ্রেসের শক্তির একটি গুরুত্বপূর্ণ পুণনির্মান।

এখন থেকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প স্বেচ্ছাচারীভাবে ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করতে পারবেন না। এরপর যুদ্ধ করার জন্য ট্রাম্পের প্রতিনিধি পরিষদ ও সিনেট দু’টিরই অনুমতি লাগবে।

সূত্র- বিবিসি, আল জাজিরা

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ/টিআরএইচ