Alexa মানুষের কৃত্রিম ফুসফুস বানিয়ে মৌ-আঁখি-বিপাশার চমক  

মানুষের কৃত্রিম ফুসফুস বানিয়ে মৌ-আঁখি-বিপাশার চমক  

ডেস্ক নিউজ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৪৩ ১৭ জুন ২০১৯   আপডেট: ১৩:৪৬ ১৭ জুন ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর তিন কিশোরী রুমান্তা হোসেন মৌ, নাইমা আক্তার আঁখি ও বিপাশা খাতুন মানুষের কৃত্রিম ফুসফুস বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। 

জাতীয় পর্যায়ের স্কিলস কম্পিটিশন-২০১৮ প্রতিযোগিতায় এই উদ্ভাবন নজর কাড়ছে সবার। এর আগে মানুষের কৃত্রিম ফুসফুস আবিষ্কার করে সারাবিশ্বে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছিলেন বাংলাদেশি তরুণ বিজ্ঞানী আয়েশা আরেফিন টুম্পা।  

রাজশাহী মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী মৌ-আঁখি-বিপাশা ক্লাসের ফাঁকে তিনজনে মিলে মানুষের জন্য কৃত্রিম ফুসফুস বানিয়েছেন। যেটি বাংলাদেশের  জন্য খুবই উপযোগী ও সাশ্রয়ী একটি প্রকল্প। এর মাধ্যমে চিকিৎসা ব্যয় বহুলাংশে কমিয়ে আনা সম্ভব।

এই তিন ক্ষুদে উদ্ভাবক বলেন, তাদের এই যন্ত্র রোগীর অবস্থা অনুযায়ী নলের মাধ্যমে শ্বাসনালীতে সংযুক্ত করা সম্ভব। এখানে আলাদা করে কোনো অক্সিজেন সিলিন্ডারের প্রয়োজন হবে না। কেননা প্রকৃতি থেকে এটি অক্সিজেন সংগ্রহ করবে। এদিক থেকে প্রচলিত ভেন্টিলেটরের তুলনায় এটি আধুনিক।
 
মৌ বলেন, প্রচলিত ভেন্টিলেটরের দাম ৭ থেকে ১০ লাখ টাকা। আমাদের যন্ত্রটি ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকায় ব্যবহার উপযোগী করে তৈরি করা সম্ভব। দেশের মানুষের জন্য এই সামান্য কাজটুকু করতে পেরে আমরা অনেক বেশি আনন্দিত ও গর্বিত।

আঁখি ও বিপাশা বলেন, কলেজে পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকে পুরো কাজটি করেছি। এখন সবাই যেভাবে বাহবা দিচ্ছে সেটা আমাদের আরো অনেক স্বপ্ন দেখাচ্ছে। এরপর আরও নতুন কিছু উদ্ভাবনের জন্য চেষ্টা শুরু করব। 

রোববার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) আয়োজিত জাতীয় পর্যায়ের স্কিলস কম্পিটিশন-২০১৮ ঘুরে দেখেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে