Alexa মাদকবিরোধী অভিযান: দুই বার মালিকসহ ৭৪ জনের কারাদণ্ড

মাদকবিরোধী অভিযান: দুই বার মালিকসহ ৭৪ জনের কারাদণ্ড

প্রকাশিত: ০৪:৪৯ ২৯ জুলাই ২০১৮   আপডেট: ০৮:২২ ২৯ জুলাই ২০১৮

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

গভীর রাতে রাজধানীর বসুন্ধরার যমুনা ফিউচার পার্কের উল্টো পাশের একটি বারে মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযান চালিয়েছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। 

এ সময় বারটির দুই মালিক মনির হোসেন ও আশরাফসহ ম্যানেজার শেখ শামীমকে ২ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এছাড়া ৭৪ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। 

শনিবার রাতে র‌্যাব-১ এর সহায়তায় প্রগতি নামের ওই হোটেল এন্ড বারে অভিযান চালানো হয়। 

র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় বারটি থেকে বিপুল পরিমান অনুমোদনহীন মদ ও বিয়ার উদ্ধারের পর জব্দ করা হয়। 

রোববার ভোর পৌনে ৫ টার দিকে টার দিকে ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, বারটির (সুরিখানা বা মদ বিক্রির দোকান) লাইসেন্স থাকলেও বৈধ ব্যবসার আড়ালে অবৈধ ব্যবসা করছে। প্রতিষ্ঠানটিতে বিভিন্ন ধরনের অবৈধ কর্মকান্ডের প্রমাণ পাওয়া গেছে। 

তিনি আরো বলেন, লাইসেন্সের শর্ত অনুযায়ী যাদের মদ পান করার লাইসেন্স আছে শুধু তাদের কাছেই মদ বিক্রি করতে পারবে এই বার। কিন্তু বারাটি অপ্রাপ্ত বয়স্ক থেকে শুরু করে সবার কাছে মদ ও বিয়ার জাতীয় পণ্য বিক্রি করছে। যা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রে আরো বলেন, বারটি থেকে ৯০ জনকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে মাত্র ৯ জনের মদ পানের লাইসেন্স আছে। তবে যাচাই-বাছাই শেষে ৭৪ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে (১৫ দিন থেকে ১ মাস) কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।

সারওয়ার আলম বলেন, বারটি একদিকে অনুমোদন ছাড়াই বিভিন্ন ধরণের বিদেশি মদ ও বিয়ার বিক্রি করছে। অপরদিকে ২০০ ক্যান বিয়ার বিক্রি করা হলেও খাতা-পত্রে লেখা হয় ২০টি বা ২২টি। যা এক ধরনের জালিয়াতি।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এসবি/আরএ/টিআরএইচ