Alexa মাত্র পাঁচ সেকেন্ড অক্সিজেন না থাকলে পৃথিবীতে যা ঘটবে

মাত্র পাঁচ সেকেন্ড অক্সিজেন না থাকলে পৃথিবীতে যা ঘটবে

বিজ্ঞান ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:১৮ ২৮ অক্টোবর ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

অনেকেরই ধারণা, শুধুমাত্র প্রাণীর বেঁচে থাকার জন্যই অক্সিজেনের প্রয়োজন। এটা ভুল! পৃথিবীর সবকিছুর সঙ্গেই জড়িয়ে আছে অক্সিজেন। এমনকি আমরা যে মাটির উপর দাঁড়িয়ে আছি, সেটিকেও ধরে রাখে প্রায় ৪৫ শতাংশ অক্সিজেন। অক্সিজেনের পরিমাণ কমে গেলে মাটি ধসতে শুরু করবে। আর মাটি ধসে গেলে আমাদের কারো পক্ষেই টিকে থাকা সম্ভব হবে না।

ধরুন, হুট করেই পাঁচ মিনিটের জন্য পৃথিবী থেকে অক্সিজেন উধাও। কী হবে তখন? আপনার মনে হতে পারে পাঁচ সেকেন্ডে কী-ই-বা আর হবে। কারণ বেশির ভাগ মানুষই কমপক্ষে ৩০ সেকেন্ড শ্বাস-প্রশ্বাস না নিয়ে থাকতে পারে। অথচ আশ্চর্য হলেও সত্য, পাঁচ সেকেন্ডের অক্সিজেনহীন অবস্থার কারণেই ভেঙে পড়বে কংক্রিটের স্থাপনা, উল্কার মতোই খসে পড়বে আকাশে উড়তে থাকা প্লেন, ঘটে যাবে পরিবেশের বিশাল বিপর্যয়। চারিদিক পরিণত হবে ধ্বংসস্তূপে।

পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলের ২১ ভাগই অক্সিজেন, ৭৮ ভাগ নাইট্রোজেন। যদিও দেখা যাচ্ছে বায়ুমণ্ডলে অক্সিজেনের চেয়ে বেশি অংশজুড়ে রয়েছে নাইট্রোজেন। তবুও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে অক্সিজেন। এটা অনেকটা একটা ভবনের ফাউন্ডেশনের মতো। অক্সিজেন ছাড়া প্রাণী, উদ্ভিদ, জল এমনকি মানুষও নিজস্ব অবস্থানে ঠিকমত থাকবে না। উদাহরণ- আমরা ইট বালি এবং সিমেন্টকে একত্র করে দালান তৈরি করি। কিন্তু এই ইট, বালি, কংক্রিট—এদের জমিয়ে রাখে কে বলতে পারেন? এদের জমিয়ে রাখার কাজটা করে অক্সিজেন। এমনকি একটা কংক্রিট ভাঙলে যে ছোট কণা হয়ে যায়, সেইসব কণাকেও একত্র করে রাখে অক্সিজেন। যেই সময় বায়ুমণ্ডলে অক্সিজেন নাই হয়ে যাবে সঙ্গে সঙ্গেই এসব কংক্রিটের দালান পাউডারের মতো গুঁড়ো হয়ে যেতে শুরু করবে।

অক্সিজেন না থাকলে বিমানও চলবে না

অক্সিজেন না থাকলে পৃথিবীর সব গাছ শুকিয়ে যাবে। কারণ গাছকেও বাঁচিয়ে রাখে অক্সিজেন। আর নিমিষের অক্সিজেনহীনতা হতে পারে সেই গাছের জন্য ধ্বংসের কারণ। সবচেয়ে বেশি পরিমাণ অক্সিজেন উৎপন্ন করে গাছ ফটোসিন্থেসিস এর মাধ্যমে। তাই গাছকে রক্ষা করা এবং গাছ লাগানো কতটা জরুরি তা তো বুঝতেই পারছেন। অক্সিজেন না থাকলে যত ধাতু আছে সব একসঙ্গে জুড়ে যাবে। কেননা প্রতিটি ধাতুর ওপর অক্সিজেনের স্তর থাকে এবং সেটি না থাকলে পরস্পরের সঙ্গে লেগে থাকা ধাতু নিজে থেকেই জুড়ে যাবে।

অক্সিজেনের না থাকলে যোগাযোগ ব্যবস্থাও ভেঙে পড়বে। পৃথিবীতে যত গাড়ি আছে সব বন্ধ হয়ে যাবে। একটি গাড়ির ইঞ্জিন কাজ করে ফিউলের সাহায্যে। কিন্তু যদি অক্সিজেন না থাকে তবে কম্প্রেসন হবে না এবং সঙ্গে সঙ্গেই বন্ধ হয়ে যাবে সব গাড়ি। আকাশে আমরা যে বিমান দেখতে পাই সাঁই সাঁই করে মেঘের ভেতর দিয়ে উড়ে যায়, সেই বিমান বা হেলিকপ্টার তাদের ওড়া বন্ধ করে দেবে অক্সিজেনের অভাবে। হাজার হাজার মাইল উপর থেকে ছিটকে পড়বে মাটিতে।

আপনি হয়তো ভাবছেন পাঁচ সেকেন্ড পর যখন অক্সিজেন ফিরে আসবে তখন হয়তো সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে যাবে। কিন্তু বিষয়টি মোটেও এমন নয়। পাঁচ সেকেন্ড পর যদি হঠাৎ অক্সিজেন ফিরেও আসে তাহলে পুরো পৃথিবী ঠান্ডা হয়ে যাবে। সঙ্গে সঙ্গে ঘটবে ভয়ানক বিস্ফোরণ। কারণ অক্সিজেনের সংস্পর্শে আসা মাত্র সবকিছু অক্সিডাইসড হতে শুরু করবে। ঘটতে থাকবে ভয়ঙ্কর সব ঘটনা। মাত্র পাঁচ সেকেন্ডের অক্সিজেনহীনতা হতে পারে এই পৃথিবীর ধ্বংসের কারণ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে