ভুলিয়ে-ভালিয়ে প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, চিকিৎসক জানালেন অন্তঃসত্ত্বা

ভুলিয়ে-ভালিয়ে প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, চিকিৎসক জানালেন অন্তঃসত্ত্বা

মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:৪৯ ২২ এপ্রিল ২০২০  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

নরসিংদীর মনোহরদীতে বাকপ্রতিবন্ধী নারীকে ভুলিয়ে-ভালিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে আবুল হোসেন নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে।

এরইমধ্যে ওই নারী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন। উপজেলার একদুয়ারিয়া ইউপির একটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বুধবার ধর্ষিতা বাদী হয়ে মনোহরদী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযুক্ত ধর্ষক আবুল হোসেন বিলাগী গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে।

গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে গৃহপরিচারিকার কাজ করতেন ওই নারী। প্রতিদিন আসা যাওয়ার পথে আবুল হোসেন বিভিন্ন ইশারা ইঙ্গিতে তাকে কু-প্রস্তাব দিতেন। এতে তিনি সাড়া না দিলে ইশারায় বিয়ের প্রলোভন দেখানো হয়। গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় গৃহপরিচারিকার কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন ওই প্রতিবন্ধী নারী। এ সময় রাস্তায় তাকে একা পেয়ে ভয় দেখিয়ে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করেন আবুল  হোসেন। পরবর্তীতে ওই নারীকে ভুলিয়ে ভালিয়ে টানা ধর্ষণ করে আসছিলেন আবুল।

এরইমধ্যে ওই নারী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। অবস্থা বেগতিক দেখে আবুল হোসেন বিষয়টি তার স্ত্রীর সুফিয়া আক্তারকে জানান। পরে তারা ওষুধ খাইয়ে অন্তঃসত্ত্বা নারীকে গর্ভপাত ঘটানোর জন্য চেষ্টা করেন। এতে রাজি না হওয়ায় আবুল হোসেন ও তার স্ত্রী ওই নারীকে মারধর করেন। পরে আহত অবস্থায় মনোহরদীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক জানান ওই নারী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে আবুল হোসেন এবং তার স্ত্রী সুফিয়া আক্তারকে আসামি করে মনোহরদী থানায় অভিযোগ করেছেন।

মনোহরদী থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান জানান, ধর্ষণের শিকার নারী বাদী হয়ে দুজনকে আসামি করে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ