Alexa ভারতে অমুসলিমরা ৫ বছর থাকলেই পাবে নাগরিকত্ব

ভারতে অমুসলিমরা ৫ বছর থাকলেই পাবে নাগরিকত্ব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:৫৫ ৭ ডিসেম্বর ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ছয় দশকের পুরানো নাগরিকত্ব আইনের প্রস্তাবিত সংশোধনী বিল সোমবার লোকসভায় উপস্থাপন করা হবে।

ওই বিল অনুযায়ী ধর্মীয় নিপীড়নের মুখোমুখি পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আসা অমুসলিমরা মাত্র পাঁচ বছর শরণার্থী হিসেবে থাকলেই ভারতীয় নাগরিকত্ব পাবেন।

তবে নতুন আইনটি আসাম, অরুণাচল প্রদেশ, মেঘালয়, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড এবং ত্রিপুরার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না। শুধুমাত্র ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে যারা দেশটিতে পাঁচ বছর বা তার চেয়ে বেশি সময় ধরে থেকেছেন তারাই এই নাগরিকত্ব পাবেন।

১৯৫৫ সালের মূল আইনে বলা হয়েছিল, নাগরিকত্ব পেতে হলে এ দেশে থাকতে হবে ১১ বছর। কিন্তু প্রথম মোদি সরকারের আমলে আনা বিলটিতে তা কমিয়ে ছয় বছর করা হয়। এবার কমানো হলো আরও এক বছর।

বিলে বলা হয়েছে, শর্ত অনুযায়ী যে ব্যক্তি এই ধারার অধীন নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করবেন তাদের দেশের মৌলিক অধিকার, স্বাধীনতা ও সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবেন না। নাগরিকত্ব প্রমাণে কাগজপত্রের ঝামেলা যাতে না থাকে সে জন্য শুরু থেকেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে দাবি জানায় রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব

সংশোধিত আইনে কোনো শরণার্থী অমুসলিম হলফনামা দিলেই তাকে নাগরিকত্ব দেয়া হবে বলে দাবি বিজেপি নেতাদের। কিন্তু কোনো মুসলিম যদি নিজেকে হিন্দু বা পার্সি বা বৌদ্ধ হিসেবে দাবি করেন তা হলে তা আটকানোর উপায় রয়েছে কি না, তা নিয়ে নীরব বিজেপি শিবির। তবে বিজেপির থিঙ্ক ট্যাঙ্ক শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় রিসার্চ ফাউন্ডেশনের ডিরেক্টর অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, বিলটি আগে আসুক। তা হলেই সব স্পষ্ট হবে। যে প্রশ্নগুলো উঠছে বিলটির বিস্তারিত আলোচনায় নিশ্চয়ই উঠে আসবে।

রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত অনেকেই মনে করেন নাগরিকত্ব বিল পাস হলে পশ্চিমবঙ্গে সব থেকে বেশি সুবিধা হবে মতুয়া সম্প্রদায়ের। কারণ তারা দীর্ঘ সময় ধরে নাগরিকত্বের দাবিতে সরব রয়েছে। বিজেপি শিবিরের বক্তব্য, সেই দাবি পূরণ করতেই বিলটি আনছে মোদি সরকার।

নতুন বিলে বলা হয়েছে ইনার লাইন পারমিট ও ষষ্ঠ তফশিলভুক্ত এলাকায় ওই আইন প্রযোজ্য হবে না। 

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ