ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ মিশনে নামছে বাংলাদেশের নারীরা

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ মিশনে নামছে বাংলাদেশের নারীরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৪০ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

সদ্য সমাপ্ত অনূর্ধ্ব-১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। সেই রেশ না ফুরোতেই আরেকটি বিশ্বকাপের মঞ্চে মাঠে নামছে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। অবশ্য এবার খেলবে নারী ক্রিকেট দল। আগামীকাল (সোমবার) ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে সালমা খাতুনের দল। অস্ট্রেলিয়ার পার্থে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টায়।

চলতি মাসের শুরুতে দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে ভারতকে ৩ উইকেটে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের শিরোপা জয় করেছিলো বাংলাদেশ। সেই ম্যাচ থেকে অনুপ্রেরণা নিচ্ছে বাংলাদেশ নারী দল, ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সালমা খাতুন।

সালমা বলেন, ‘দলগত সংকল্প, মেধা ও এবং কঠোর পরিশ্রমে কি করা যায় আমাদের অনূর্ধ্ব-১৯ দল সেটা  করে দেখিয়েছে এবং বিশ্বকাপের আগে আমাদের জন্য এটি বড় অনুপ্রেরনা।’   

তিনি আরো বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকায় তারা যা করতে সক্ষম হয়েছে তাতে আমরা তাদের জন্য গর্বিত। কিন্তু এখন আমরা তাকিয়ে আছি  অস্ট্রেলিয়ায় আমরা কি করতে পারি তার দিকে।’

অবশ্য নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তেমন সুখস্মৃতি নেই টাইগ্রেসদের। সবশেষ খেলা দুই আসরে কোন ম্যাচ জিততে পারেনি বাংলাদেশ। তবুও প্রথমবারের মত সেমিফাইনাল খেলার লক্ষ্যের কথা জানিয়েছেন সালমা।

এবারের আসরে কঠিন গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ। ‘এ’ গ্রুপে তাদের সঙ্গী অস্ট্রেলিয়া, ভারত, নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলংকা। এর আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশ কখনোই অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয়নি।

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে দারুন পারফরম্যান্স করেছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানকে ৫ রানে হারিয়েছে তারা। এর আগে বৃষ্টির কারনে প্রথম ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়।

নিজেদের সাফল্যের ব্যাপারে সালমা বলেন, ‘আমরা খুবই উচ্ছ্বসিত। বড় মঞ্চে খেলতে দল মুখিয়ে আছে এবং আমরা যে মানসম্পন্ন ক্রিকেট খেলতে পারি তা প্রমানের ভালো সুযোগ আমাদের সামনে। গত বিশ্বকাপের পর থেকে আমাদের দলে বিশ্বাস বেড়েছে। আমরা কিছু বড় দলকে হারিয়েছি এবং গেল দু’বছর ঐ দলগুলো আমাদের উপরেই ছিলো। অভিজ্ঞতা ও তারুণ্যের মিশ্রণে আমাদের দলটি গঠিত হয়েছে। আমাদের মূল দলটি একত্রে রয়েছে এবং তাদের অভিজ্ঞতা প্রমাণই গুরুত্বপূর্ণ।’

বড় দলগুলোর বিপক্ষে সঠিক পরিকল্পনা ও আক্রমনাত্মক ক্রিকেট খেলার প্রতি জোর দিয়েছেন সালমা। তাদের সঙ্গে সমানতালে লড়াই করার ইঙ্গিত দিয়ে সালমা বলেন, ‘যদি আমরা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ, আক্রমণাত্মক এবং বাধা ছাড়াই খেলতে পারি তবে আমরা ভালো অবস্থায় যেতে পারবো। আমরা যদি আমাদের পরিকল্পনাগুলো সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে পারি, তবে সাফল্য আমাদের দিকেই আসবে। আমরা শেষ বল পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবো। আমার দলের কাছে আমি এটিই প্রত্যাশা করি।’

২০১৮ সালের এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়া থেকেও অনুপ্রেরণা পাচ্ছেন সালমা। সেবার টুর্নামেন্টে গ্রুপপর্ব ও ফাইনালে ভারতকে হারায় বাংলাদেশ। সালমা বলেন, ‘আমরা এই গ্রুপে বিশ্বের বড় বড় দল পেয়েছি। কিন্তু যখন এ ধরনের টুর্নামেন্ট খেলতে হয়, তখন চিন্তা করার উপায় নেই কারা ভালো এবং দুর্বল দল। আমরা অনেক প্রতিকূলতার মাঝেও নিজেদের উপর আস্থা রেখে এশিয়া কাপ জিতেছি। আমরা বিশ্বকাপেও একই মানসিকতা নিয়ে খেলতে নামবো।’

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস/এএল