বড় বাঁচা বাঁচলো পৃথিবী, পাশ কাটিয়ে গেল ‘ভয়ংকর’ গ্রহাণু

বড় বাঁচা বাঁচলো পৃথিবী, পাশ কাটিয়ে গেল ‘ভয়ংকর’ গ্রহাণু

বিজ্ঞান ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৯:৫৩ ২৯ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ১০:০৮ ২৯ এপ্রিল ২০২০

‘অ্যাস্ট্রয়েড ৫২৭৬৮’

‘অ্যাস্ট্রয়েড ৫২৭৬৮’

বিশাল এক গ্রহাণুকে ঘিরে উদ্বেগ ছিল বিজ্ঞানী মহলে। ভয়ে ছিল বিশ্ববাসীও। আর চিন্তার কারণ নেই, পাশ কাটিয়ে গেল ‘ভয়ংকর’ গ্রহাণুটি। বলা যায়, বড় বাঁচা বাঁচলো পৃথিবী। ‘১৯৯৮ ওআর২’ নামের গ্রহাণুটি যদি পৃথিবীর সঙ্গে কোনোভাবে ধাক্কা লাগতো তাহলে লাখ লাখ মানুষের মৃত্যুর সম্ভাবনা ছিল।

গ্রহাণুটি সঙ্গে পৃথিবীর কোনোভাবে ধাক্কা লাগলে কয়েক মুহুর্তেই অনেক দেশ ধ্বংস হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল। এছাড়া প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সৃষ্টি হতো বলে জানিয়েছে নাসা।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, এটি মাউন্ট এভারেস্টের চেয়ে কয়েকগুণ বড়। শেষ মুহূর্তে গ্রহাণুটির গতি ছিল ঘণ্টায় ৩১ হাজার ৩১৯ কিলোমিটার। পৃথিবী থেকে প্রায় ৬২.৯০ লাখ কিলোমিটার দূর থেকে পাশ কাটিয়ে যায় গ্রহাণুটি। মহাকাশ বিজ্ঞানে এই দূরত্বটিকে খুব বেশি বিবেচনা করা হয় না!

১৯৯৮ সালে নাসার জেট প্রোপালসন ল্যাবরেটরি প্রথমবারের মতো গ্রহাণুটি খুঁজে পাওয়া যায়। সম্প্রতি অবজারভেটরিতে ধরা পড়া এর একটি ছবিও প্রকাশ করা হয়েছে। আপাতদৃষ্টিতে গ্রহাণুটি দেখতে অনেকটা মাস্কের মতো মনে হচ্ছে।

৬.৬ কোটি বছর আগে মেক্সিকোর উত্তরে একটি বিশালাকায় গ্রহাণু এসে পড়েছিল। তাতেই বিশাল সংখ্যক ডাইনোসরের মৃত্যু হয়েছিল। আর যে ধুলোর ঝড় উঠেছিল, তাতে ঢেকে গিয়েছিল পুরো পৃথিবী। যার ফলে পরের দশ বছর প্রায় পৃথিবীতে সূর্যালোক সেভাবে পৌঁছায়নি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে