Alexa ইউএনওর কল্যাণে ঠাঁই পেল রাস্তায় ফেলে দেয়া সেই বাবা

ইউএনওর কল্যাণে ঠাঁই পেল রাস্তায় ফেলে দেয়া সেই বাবা

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:২২ ২৮ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৮:২৮ ২৮ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ইউএনওর সহযোগীতায় জমি লিখে নিয়ে রাস্তায় ফেলে যাওয়া সেই বৃদ্ধ বাবার ঠাঁই হল বড় ছেলে ইসমাইল হাওলাদারের ঘরে।

বৃদ্ধ আবদুল গনি হাওলাদাসহ তার বড় ছেলেকে ডেকে এনে আর্থিক সহায়তা দিয়ে বাবাকে ভরণ-পোষণের দায়িত্ব দিয়ে দিলেন আমতলীর ইউএনও মনিরা পারভীন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলা চাওড়া ইউপির চন্দ্রা গ্রামের এক সময়ের ধনাট্য ব্যক্তি আবদুল গনি হাওলাদার। তার ছিল ২৫ একর জমি। দুই স্ত্রীর পাঁচ ছেলে ও চার মেয়ে। বয়সের ভারে চোখে দেখেন না, কানে কম শোনেন ও ঠিকমতো কথা বলতে পারেন না।

এ সুযোগে দুই স্ত্রীর পাঁচ ছেলে বাবাকে ভালোবাসার অভিনয় করে যখন যেভাবে পেরেছে জমিজমা লিখে নিয়েছে। এরপর মেজ ছেলে শাহজাহান হাওলাদার বাবাকে চিকিৎসা করানোর নাম করে তার আমতলী পৌরসভার বাসায় নিয়ে যায়।

ওই বাসায় নিয়ে তার সর্বশেষ জমিটুকু লিখে নেন। শনিবার সকালে শাহজাহান হাওলাদারের ছেলে সোহেল দাদাকে একটি গাড়িতে করে নিয়ে হলদিয়া ব্রিজ সংলগ্ন স্থানে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়।

ওইদিন দুপুরে পেটের ক্ষুধায় কাতরাতে দেখে স্থানীয় লোকজন তাকে একটি দোকান ঘরে বসিয়ে পাউরুটি খেতে দেয়। খবর পেয়ে আমতলী থানার ওসি মো. আবুল বাশার ও এসআই মহিউদ্দিন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে ছোট স্ত্রীর ছেলে জামালের কাছে দিয়ে আসেন।

সোমবার আমতলীর ইউএনও মনিরা পারভীন বৃদ্ধ বাবা আবদুল গনি হাওলাদার ও তার বড় ছেলে ইসমাইলকে অফিসে ডেকে নেন। পরে ইউএনও বৃদ্ধ বাবার ভরণ-পোষণের দায়িত্ব বড় ছেলে ইসমাইল হাওলাদারকে দিয়ে নিজ তহবিল থেকে তিন হাজার টাকা আর্থিক অনুদান এবং সরকারি ত্রাণ তহবিল থেকে এক মাসের ভরণ-পোষণ দিয়ে দেন এবং একই সঙ্গে বয়স্কভাতা দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

ইউএনও মনিরা পারভীন বলেন, ওই বৃদ্ধা বাবাকে তার বড় ছেলে ইসমাইল হাওলাদারের দায়িত্বে দেয়া হয়েছে। এরপর ওই বৃদ্ধ বাবার ভরণ-পোষণে কোনো ব্যত্যয় হলে ছেলেদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে