ব্রিজের সংযোগ সড়কে ধস, দুর্ভোগ চরমে

ব্রিজের সংযোগ সড়কে ধস, দুর্ভোগ চরমে

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৩৭ ৯ জুলাই ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার বাঘুটিয়া ইউপির বৈন্যামোড়-রেহাইপুখুরিয়া বাজার সড়কের হুরমুজের বাড়ি সংলগ্ন ব্রিজের দক্ষিণ পাশের সংযোগ সড়কের মাটি বন্যার পানির চাপে ধসে গেছে। ফলে এ সড়ক দিয়ে অটো সিএনজিসহ সব প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে এলাকাবাসীর যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ ভাঙন ঠেকাতে এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের পাইলিং দিলেও বন্যার পানির প্রবল ধাক্কায় তা রক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না।

এ বিষয়ে বাঘুটিয়া ইউপির ১ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মির্জা সেলিম, ইসমাইল হোসেন, সাইফুল ইসলাম, জুয়েল রানা, মনির হোসেন,মিলন মিয়া,বাহাদুর শেখ জানান, এ এলাকার অন্তত ১০টি গ্রামের ২০ হাজার মানুষের যাতায়াতের সুবিধার জন্য গত বছর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় ৩০ লাখ ৬৫ হাজার টাকা ব্যয়ে রেহাইপুখুরিয়া ব্রিজটি নির্মাণ করে।

গত কয়েকদিন হলো বন্যার পানি কমতে থাকায় এ ব্রিজটির নিচ দিয়ে প্রবল বেগে বন্যার পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে ব্রিজটির দুই পাশে ২০০ মিটার এলাকা জুড়ে পানির বিশাল ঘূর্ণাবর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে ওই ব্রিজের পাশের একটি কাঠ বাগান ও ১০টি বাড়ি ভাঙনের মুখে পড়েছে। 

এ ছাড়া ব্রিজটির বেশ কিছু স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে। এ ছাড়া বুধবার দুপুরে ব্রিজটির দক্ষিণ পাশের সংযোগ সড়কের মাটি ধসে গিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। গ্রামবাসীরা বাড়ি বাড়ি থেকে ১০০টি বাঁশ ও অর্থ সংগ্রহ করে এলাকাবাসীর স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের পাইলিং ও বালুর বস্তা ফেলা হলেও পানির প্রবল ধাক্কায় তা টিকিয়ে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। সরকারিভাবে দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে যে কোনো মুহূর্তে ব্রিজটি ধসে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। 

এ বিষয়ে ওই সড়কে চলাচলকারী ব্যাটারিচালিত অটো সিএনজি চালক নূর আলম ও সোহেল ফকির বলেন, ব্রিজটির সংযোগ সড়ক ভেঙে যাওয়ায় গত দুই দিন ধরে আমাদের গাড়ি চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে আমাদের আয় উপার্জনও বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে অর্থাভাবে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি।

এ বিষয়ে বাঘুটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাহ্হার বলেন, বিষয়টি ইউএনও ও পিআইওকে জানিয়েছি। তারা দ্রুত এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান। 

এ বিষয়ে চৌহালী প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মজনু মিয়া বলেন, ওই ব্রিজের নিচ দিয়ে যে পরিমাণ পানি প্রবাহিত হওয়ার কথা তার চেয়ে ৪ গুণ বেশি পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, ব্রিজটি রক্ষায় সরেজমিন পরিদর্শন করে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ