Alexa ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্কুলে শিক্ষার্থীদের নির্বাচন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্কুলে শিক্ষার্থীদের নির্বাচন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:১২ ২৫ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৬:৫৭ ২৫ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সারাদেশের ন্যায় উৎসবমুখর পরিবেশে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিভিন্ন উচ্চ বিদ্যালয়ে স্কুল কেবিনেট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ব্রাহ্মণবাড়িযা উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৬ষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা লাইনে দাঁড়িয়ে সুশৃঙ্খলভাবে ভোট দিতে দেখা গেছে। তাদের মধ্যে ছিল এক প্রকার উৎসবের আমেজ।

ভোট কেন্দ্রে আসা দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী সুমিত সাহা, সামিয়ুল হক জানান, আমার ভোট আমি দিব, দেখে শোনে যোগ্য বন্ধুকে দিব। বড়রা ভোট দেয় আমরা তাকিয়ে কেবল দেখতাম, ভোট দিতে পারতাম না। আজ নিজ স্কুলে ভোট দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে। আমারা বন্ধু সহপাঠীদের ভোট দিয়েছি। বড় হয়ে বড় নির্বাচনে ভোট যেনো দিতে পারি এই প্রত্যাশা করছি।

একই স্কুলের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী দীপ্ত কর্মকার ও ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র সৈয়দ এহসাস জানান, আজ ভোট দিয়েছি বেশ ভালো লেগেছে। এইটা আমার জীবনের প্রথম ভোট। শুধু স্কুলে নয় আমরা বড় হয়ে কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও জাতীয় নির্বাচনে ভোট দিব।

এদিকে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের এ নির্বাচনকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন শিক্ষক এবং অভিভাবকরা। 

নির্বাচন কেন্দ্রে উপস্থিত অভিভাবক আরিফুর রহমান জানান, এই নির্বাচন বেশ ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে। শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার পাশাপাশি নেতৃত্ব দেয়ার যে একট বিষয় তারা কিন্তু স্কুলপর্যায় থেকে শিখতে পারবে।

অভিভাবক রোজিনা আক্তার জানান, সৎ যোগ্য দেশ প্রেমিক নেতৃত্ব তৈরিতে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে। 

বিদ্যালয় সূত্র জানায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির মোট আটটি পদের বিপরীতে বিভিন্ন শাখার ১৮ জন শিক্ষার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এই স্কুলে মোট এক হাজার ৪৭২ জন শিক্ষার্থী ভোট প্রদানের মাধ্যমে আগামী এক বছরের জন্য একজনকে নির্বাচন করবে। ভোটগ্রহণ সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোস্তফা কামাল জানান, স্কুল কেবিনেট নির্বাচন নিঃসন্দেহে প্রসংশনীয়। আজকের কোমলমতি শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনে দেশ গড়বে। তাই এই নির্বাচন নেতৃত্বের বিকাশে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। পাশাপাশি দেশের নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষেত্রে এই নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম