Alexa ‘ব্যক্তিগত গাড়ির অপব্যবহার রোধ করতে হবে’

‘ব্যক্তিগত গাড়ির অপব্যবহার রোধ করতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:৫০ ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ব্যক্তিগত গাড়ির অপব্যবহার রোধ করতে হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, এ শহরে এমন অনেক পরিবার আছে যাদের সদস্য সংখ্যা তিন, কিন্তু গাড়ি আছে ৫টি। এই যে ব্যক্তিগত গাড়ির অপব্যবহার, এটাকে রোধ করতে হবে।

রোববার বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবসের অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অপ্রয়োজনীয় ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে কাজ করতে এ সময় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) প্রতি আহ্বান জানান মেয়র।

ডিএসসিসির মেয়র বলেন, আমরা (ডিএসসিসি) ফুটপাত দখলমুক্ত করতে চেষ্টা করছি। এ ব্যাপারে বিআরটিএ যদি নতুন গাড়ির রেজিস্ট্রেশন দেয়ার ক্ষেত্রে কঠোর হয়; যার একটি গাড়ি আছে সে যাতে দু’টি বা তিনটি গাড়ি না রাখতে পারে সেদিকে দৃষ্টি দেন, তাহলে অনেক উপকারে আসবে। এতে করে অপ্রয়োজনে ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার নিয়ন্ত্রিত হবে।

নাগরিকদের উদ্দেশে মেয়র বলেন, যারা একটা অ্যাপার্টমেন্টে থাকেন তারা কিন্তু চাইলেই ১০ জন মিলে একটা গাড়ি শেয়ার করে বাচ্চাদের স্কুলে পাঠাতে পারেন। এতে অর্থেরও সাশ্রয় হবে আবার যানজটও হ্রাস পাবে। তবে আমি বিআরটিএর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি- ব্যক্তিগত গাড়ি রেজিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে কঠোরতা অবলম্বন করুন। প্রয়োজনে নতুন রুলস রেগুলেশন করে ব্যক্তিগত গাড়ির রেজিস্ট্রেশনের বিষয়টি দেখতে পারেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। 

তিনি বলেন, নিরাপদ ফুটপাতের সৃষ্টিতে মেয়ররা ফুটপাত ক্লিয়ার করে দেবেন। আমরা সেখানে আর কাউকে বসতে দেব না। তবে বিষয়টি একবারে নয়, পর্যয়ক্রমে করার আহ্বান জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

বাস মালিকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সুন্দর বাস সার্ভিসের বড় অভাব। বাস মালিকদের বলব চাঁদাবাজদের চাঁদা কমিয়ে বাসের দিকে খেয়াল দেন। ভালো বাস নামান তাহলে ব্যক্তিগত গাড়ি কমে আসবে।

‘সাইকেলে ও হেঁটে চলার পথ নিরাপদ করি’ এই স্লোগানে এবার ৫৯টি সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার সম্মিলিত উদ্যোগে দিবসটি পালন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত মানিক মিয়া অ্যাভিনিউএ’র এক পাশের রাস্তায় গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখা হয়। এ সময় ওই বন্ধ থাকা সড়কে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন খেলাধুলা ও সাইকেল চালানোর মধ্যে দিয়ে উপভোগ করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- ডিটিসিএ নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমান, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মিহির বিশ্বাস প্রমুখ।

ডেইলি বাংলাদেশ/ডিএম/এসআই