Alexa বোনের মরদেহ চার দিন ধরে আগলে রাখলেন ভাই

বোনের মরদেহ চার দিন ধরে আগলে রাখলেন ভাই

নিউজ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৮:১১ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ২০:৫১ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

চার দিন ধরে বড় বোনের মরদেহ আগলে রাখলেন ভাই। দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ হয়ে প্রতিবেশীরা পুলিশে খবর দিলে, উদ্ধার করা হয় পচা-গলা এ মরদেহ। ভারতের দমদমের জগদীশপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দমদমের জগদীশপুর একটি বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ বেরোচ্ছে বলে অভিযোগ জানান প্রতিবেশীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দমদম থানার পুলিশ। নির্দিষ্ট বাড়িটি তল্লাশি করেন তারা। কিন্তু দুর্গন্ধের উৎস দেখে তাদেরও চোখ কপালে! পড়ে রয়েছে ওই বাড়ির বাসিন্দা ৫৫ বছরের রুমা দত্তের মরদেহ! আর সেই দেহ আগলে বসে রয়েছেন তারই ৫০ বছরের ভাই বিশ্বরূপ দত্ত।

পুলিশের দাবি, অন্তত চার দিন আগে মৃত্যু হয়েছে রুমাদেবীর। সৎকার না করে, কাউকে না জানিয়ে, মরদেহ আগলে বসে থেকেছেন ভাই বিশ্বরূপ। পচন ধরলেও কাউকে জানাননি। বিশ্বরূপকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে পুলিশের কাছে এই কথা স্বীকার করেছেন বিশ্বরূপ। জানিয়েছেন, দিদিকে পাহারা দিচ্ছিলেন তিনি।

স্থানীয় বাসিন্দাদের মতে, রুমা দত্ত এবং তার ভাই বিশ্বরূপ দত্ত–দু’জনেই মানসিক রোগী। প্রতিবেশীদের সঙ্গে মিশতেন না তারা। তাই এলাকার বাসিন্দারাও খুব একটা তাদের খোঁজ খবর রাখতেন না। তাদের বাবা মা মারা গেছেন। রুমাদেবীর বিয়ে হলেও, স্বামী বিশ্বনাথ দত্ত অনেক দিন আগেই ছেড়ে চলে গেছেন। তার পর থেকে দু’ভাই-বোন একাই থাকতেন ওই বাড়িতে।

রুমাদেবীর মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে দমদম থানার পুলিশ। শুরু হয়েছে তদন্ত।

গত কয়েক দিন ধরেই জগদীশপুর এলাকার বাসিন্দারা দুর্গন্ধ পাচ্ছিলেন। পরে তারা অনুমান করেন, রুমা দত্তের বাড়ি থেকেই বেরোচ্ছে গন্ধ। মঙ্গলবার সকাল থেকে সেই গন্ধ আরো তীব্র হলে, দমদম থানায় খবর দেন স্থানীয়রা। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই বাড়িতে ঢুকতেই দেখতে পান, বিছানার উপর পড়ে রয়েছে রুমাদেবীর মরদেহ। পাশেই বসে তার ভাই বিশ্বরূপ দত্ত, যেন বোনকে পাহারা দিচ্ছে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, অসুস্থতার কারণেই রুমা দেবীর মৃত্যু হয়েছে। মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ার কারণেই এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন বিশ্বরূপ।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ