বৈরুত বিস্ফোরণে আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি প্রত্যাখান লেবাননের প্রেসিডেন্টের

বৈরুত বিস্ফোরণে আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি প্রত্যাখান লেবাননের প্রেসিডেন্টের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:৩২ ৮ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ২৩:৪০ ৯ আগস্ট ২০২০

মিশেল আউন

মিশেল আউন

লেবাননের রাজধানী বৈরুতের বন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি প্রত্যাখান করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন। তিনি বলেন, ক্ষেপণাস্ত্র হামলা অথবা অবহেলা এই বিস্ফোরণের কারণ হতে পারে।

সাংবাদিকদের দেয়া এক বিবৃতিতে আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবিকে প্রকৃত ঘটনা লঘু করার প্রচেষ্টা হিসেবে দাবি করেছেন আউন। তাই আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবিকে প্রত্যাখান করেছেন তিনি।

আউন জানান , বিস্ফোরণে ধ্বংসস্তুপের ভেতরে বেঁচে থাকা লোকদের সন্ধানে এখনো অভিযান অব্যাহত রেখেছে উদ্ধারকারীদের দল।

গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বিকেলে লেবাননের রাজধানী বৈরুত বন্দরের একটি বিস্ফোরক দ্রব্যের গুদামে ভয়াবহ এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ওই বিস্ফোরণে ১৫৭ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন প্রায় ৫ হাজার মানুষ। বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিলো যে ভূমিকম্পের মতো কেঁপে ওঠে পুরো শহর।

ওই বিস্ফোরণে বৈরুত বন্দরের একাংশ বিলুপ্ত হয়ে গেছে। ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে নগরীর কেন্দ্রস্থলের বিশাল ব্যাসার্ধের এলাকা। গৃহহীন হয়ে পড়েছে ৩ লাখ মানুষ। এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা শেষ পর্যন্ত আরো অনেক বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবারের ওই বিস্ফোরণের পরে জনগণের অসন্তোষের মুখে পড়েছে দেশটির শাসক শ্রেনী। বন্দরের ওই গুদামে বছরের পর বছর বিপদজ্জনক অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুদ থাকার ঘটনার জন্য রাজনৈতিক পদ্ধতিকে দায়ী করছে দেশটির অনেক নাগরিক।

এদিকে, শুক্রবার লেবাননের রাজনৈতিক ব্যবস্থাকে প্রতিবন্ধী হিসেবে স্বীকার করেছেন প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন। তিনি বলেন, এই রাজনৈতিক ব্যবস্থা পুনর্বিবেচনা করা দরকার। এছাড়া এই ঘটনার দ্রুত বিচারের অঙ্গীকারও করেছেন তিনি।

আউন বলেন, এই বিস্ফোরণের সম্ভাব্য ২টি কারণ হতে পারে। হতে পারে এটি অবহেলাজনিত কারণে হয়েছে। অথবা সেখানে বিদেশী হস্তক্ষেপে ক্ষেপণাস্ত্র বা বোমা হামলার কারণে হয়েছে। ওই বিষ্ফোরণের ব্যাপারে প্রথমবারের মতো দেশটির শীর্ষ সরকারি পর্যায় থেকে এমন দাবী করা হলো।

সূত্র- টাইমস অব ইন্ডিয়া

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ