বৃদ্ধা মায়ের মুক্তি চাইলেন অসহায় দুই সন্তান

বৃদ্ধা মায়ের মুক্তি চাইলেন অসহায় দুই সন্তান

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:০৯ ৪ জুন ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

লক্ষ্মীপুরে দেড় বছরের শিশু হাবিবুর রহমানের শরীরে ইনজেকশন পুশ করার ঘটনায় প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করে ৫৫ বছরের বৃদ্ধা খুকি বেগমকে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে ফাঁসানো হয়েছে। 

এ ঘটনায় সুষ্ঠ তদন্ত দাবি করে প্রকৃত আসামিদের গ্রেফতার ও মায়ের মুক্তি দাবি করেছেন তার অসহায় সন্তানেরা। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলার চর পাবর্তীনগর এলাকার জিন্নাত আলী মুন্সী বাড়িতে এক সংবাদ সম্মেলনে খুকি বেগমের মুক্তি দাবি করেন তার ৮ম শ্রেণি পড়ুয়া ছেলে রাহাত ও বড় মেয়ে মাইসা আক্তার মর্জিনা। 

এ সময় লিখিত বক্তব্যে মাইসা আক্তার মর্জিনা বলেন, শিশু হাবিবুর রহমানের পরিবারের সঙ্গে আমাদের কোনো শত্রুতা ছিল না এবং এখনো নেই। ঘটনার দিন কে বা কারা শিশুটিকে ইনজেকশন দিয়েছে না পোকা মাকড়ের কামড়ে আক্রান্ত হয়েছে, সেটা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারেনি। অথচ ঘটনার কয়েকদিন পর শিশু হাবিবুর রহমানকে বিষাক্ত ইনজেকশন পুশ করার নাটক সাজিয়ে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে শিশুটির দাদা লাতু মিয়া মিথ্যা মামলা দিয়ে আমার মাকে ফাঁসায়। ওই দিনই পুলিশ আমার মা খুকি বেগমকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। আমার মা বর্তমানে মিথ্যা মামলায় জেলহাজতে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। আমার মা নির্দোষ, এমন কাজ তিনি করতে পারেন না। ঘটনাটির সঠিক তদন্ত করলে আমার মা নির্দোষ প্রমাণিত হবে। 

এদিকে ঘটনার পর থেকে প্রতিনিয়তই আমাদের বাড়ি-ঘরে এসে হামলা ও হত্যার হুমকিসহ বিভিন্নভাবে হয়রানি করছে ষড়যন্ত্রকারী চক্রের সদস্য মনির ও তার লোকজন। সে স্থানীয় আটিয়া বাড়ি এলাকার বাসিন্দা। তাই এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে মিথ্যা ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহার ও মায়ের মুক্তির দাবি করেন তিনি। 

খুকি বেগমের ছেলে রাহাত বলেন, আমার মা শিশু হাবিবকে আদর করতো। এমন কাজ তিনি করেননি। স্থানীয়রা ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আমার মাকে ফাঁসিয়েছেন। ষড়যন্ত্রকারীরা আমাকে স্কুলে যাওয়া আসার সময় বিভিন্নভাবে হয়রানি করছেন। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ মায়ের মুক্তি দাবি করেন শিশু রাহাত। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, খুকি বেগমের ভাই আবুল কাশেম, মেয়ের জামাতা ফিরোজ মিয়াজীসহ অন্যরা।

গত ১১ মে বিকেলে পার্বতীনগর গ্রামের ওই বাড়িতে বিষাক্ত ইনজেকশন পুশে হাবিব নামে দেড় বছর বয়সী একটি শিশু অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে প্রথমে সদর হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে শিশুটি সেখানেই চিকিৎসাধীন আছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশী বৃদ্ধা খুকি বেগমকে মামলায় জড়িয়ে গ্রেফতার করা হয়। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ