বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ

বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ২০:৩৩ ২৩ মে ২০১৯   আপডেট: ২০:৪৪ ২৩ মে ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত


বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের পেসার আল আমিন হোসেনে’র জন্ম ১ জানুয়ারি ১৯৯০ ঝিনাইদহ জেলায়। প্রচণ্ড ক্রিকেট পাগল আল আমিন জাতীয় দলে খেলার কথা কখনই ভাবেননি। তবে মাশরাফীর সঙ্গে বোলিং করতে হবে এই ইচ্ছেটা সবসময়ই ছিল। সে লক্ষ্যে ২০১৩ সালে ক্রিকেটের বনেদী ফরমেট টেষ্টে অভিষেক ঘটে তার। ৬ ম্যাচ খেলে নেন ৬ উইকেট। সে বছরই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-২০ তে অভিষেক ঘটে তার। এখন পর্যন্ত ২৫টি টি-২০ খেলে শিকার করেন ৩৯ উইকেট। পরবর্তীতে ২০১৪ সালে ওয়ানডেতে অভিষেক ঘটে।  শ্রীলংকার বিপক্ষে অভিষেকে নেন ১ উইকেট। এখন পর্যন্ত ওয়ানডেতে ১৪ ম্যাচে ২১ উইকেট শিকার করেন তিনি। কিন্তু জাতীয় দলে সাম্প্রতিক পারফরমেন্স আশানরুপ না হওয়ায় আপাতত দলের বাইরে আছেন তিনি। 

আল আমিন হোসেন, জাতীয় দলের অন্যতম একজন পেস বোলার। আসছে আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়ে টাইগারদের সফলতা, সম্ভাবনা নিয়ে আমাদের জানিয়েছেন তার নিজস্ব অভিমত। 

তার সেই অভিমতের পুরোটাই তুলে ধরা হলো ডেইলি বাংলাদেশের পাঠকদের জন্য।

আল আমিনের বিশ্বকাপ ভাবনা
এবারের বিশ্বকাপটা হবে পূর্বের সব আসরের চেয়ে একটু ভিন্ন ফরমেটে। অংশগ্রহনকারী সব দলই খেলবে একে অন্যের বিপক্ষে।

খালি চোখে বাংলাদেশের সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্নটা গল্পের মত মনে হতেই পারে, কারণ এখানে যে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া, ভারত, সাউথ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান এবং স্বাগতিক ইংল্যান্ডের মত শক্তিশালী দল।

গল্পের মত মনে হলেও বিষয়টা বাস্তবে আনার সামর্থ্য আছে বাংলাদেশ দলের। বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার ঠিক আগ মুহুর্তে স্কোয়াডে থাকা সব প্লেয়াররা ফর্মে ফিরেছেন। এ কারণে এই দাবিটা আমি আরও জোর দিয়ে করছি।

টপ অর্ডারে তামিম এর যোগ্য সঙ্গী পাওয়া যাচ্ছিলোনা দীর্ঘদিন ধরে। অথচ ১০০ ছুঁই ছুঁই স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করা সৌম্য এবং লিটন দুজনই চলে এসেছেন দুর্দান্ত ফর্মে।

তারপর সাকিব ভাই, মুশফিক ভাই এবং রিয়াদ ভাই এর সঙ্গে জায়গা করে নিয়েছেন মোহাম্মদ মিথুন। সবচেয়ে মজার ব্যাপার যেটা, সেটা হলো আমাদের বোলিং লাইন-আপ।

আমার মনে হয় আমরাই একমাত্র দল, যারা ৩০০ এর নিচে স্কোর করেও জিততে পারি। যা আধুনিক ক্রিকেটে প্রায় অসম্ভবই বলা চলে।

সদ্য পাকিস্তান এবং ইংল্যান্ডের মধ্যকার চলমান সিরিজটাই দেখুন না, দুটো ম্যাচে ৩০০ এর অধিক স্কোর করেও কিন্তু হেরেছে পাকিস্তান।

মাশরাফি ভাই এর নেতৃত্বে এবারে বিশ্বকাপে আমাদের যে টিম পাঠানো হয়েছে, সে দলের সবাই এখন ফর্মের তুঙ্গে আছেন। সেরাদের সেরা বলেই তারা জায়গা পেয়েছে স্কোয়াডে। 

আর এজন্যই এই দলটা যে বিশ্বকাপে অসাধারণ কিছু করে দেখাবে, সেই বিশ্বাস আমি হৃদয়ে ধারণ করি।

ডেইলি বাংলাদেশ/সালি