বিক্ষোভের মুখে মাটি কাটা বন্ধ

বিক্ষোভের মুখে মাটি কাটা বন্ধ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:৫৩ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

রাজবাড়ীর সদর উপজেলার চন্দনী ইউপির হড়াই নদী খননের নামে ব্যক্তি  মালিকানা জমি থেকে মাটি কেটে নিয়ে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের একজন উপসহকারী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে। 

অবৈধভাবে মাটি কাটায় বাধা দিতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছে চন্দনী ইউপি সদস্য যুবরাজ।

এলাকাবাসীর মধ্যে চাঁদ আলী, সামাদ শেখ, জসিম উদ্দিন ও বিলকিস বেগম জানান, নদী খনন কাজ শেষ হয়েছে তিন মাস আগে। রোববার হঠাৎ করে ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কাটতে আসে পানি উন্নয়ন বোর্ড । এতে বাধা দিলেই শুরু হয় হট্টগোল এবং এ সময় রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলী আরিফ সরকার চন্দনী ইউপি সদস্য যুবরাজকে মারপিট করেন। 

তবে পাল্টা অভিযোগ করে উপসহকারী প্রকৌশলী আরিফ সরকার বলেন, আমাকেই মারপিট করেছে যুবরাজসহ উপস্থিত লোকজনরা। মাটি কাটা নয় খনন কাজ ভালো না হওয়ায় মাটি সমান করার চেষ্টা করা হচ্ছিল। এলাকাবাসী এতে বাধা দিলে মাটি কাটা বন্ধ করা হয়।

এলাকাবাসী আরো জানান, সকালে হঠাৎ করে ভেকু মেশিন নিয়ে এসে ব্যক্তি মালিকানাধীন জমি কাটতে শুরু করেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা। মাটি নেয়ার জন্য আনা হয় ট্রাকও। তখন তারা এ মাটি নিয়ে গেলে ভাঙন আরো তীব্র হবে। ভেঙে যেতে পারে শত বছরের পুরাতন শ্মশান, মন্দিরসহ শত শত বসতবাড়ি। মাটি কাটার কাজে বাধা দিলে এলাকার জনপ্রতিনিধিকে মারপিট করেন তারা। পরে এলাকার শতশত মানুষের বিক্ষোভের মুখে বন্ধ করে দেয় মাটি কাটা।

অপর দিকে মাটি বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করে পানি উন্নয়ন বোর্ড রাজবাড়ির উপসহকারী প্রকৌশল আরিফ সরকার জানান, মাটি কাটা নয় খনন কাজ ভালো না হওয়ায় মাটি সমান করার চেষ্টা করা হচ্ছিল।

দু্ই কোটি আট লাখ টাকা ব্যয়ে এডিবির অর্থায়নে গত বছরের জুন থেকে নভেম্বর পর্যন্ত হড়াই নদী খনন করা হয়। এরইমধ্যে ৭০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। চলতি বছরের মে মাস পর্যন্ত প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানোর অনুমতি করেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এসএএসআই ও রুহুল আমিন জেভি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ